টেকনাফের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী পৌর কাউন্সিলর কহিনুর আক্তারের স্বামী শাহ আলম অবশেষে কারাগারে

Screenshot_2017-08-10-00-09-45-1-1-400x225.png

টেকনাফ টুডে ডেস্ক :
টেকনাফে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও মাদকসহ বিভিন্ন মামলার আসামী শাহ আলমকে আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গিয়ে কারাগারে যেতে হয়েছে । তিনি পৌরসভার পুরাতন পল্লানপাড়ার নুরুল ইসলামের ছেলে ও কাউন্সিলর কহিনুরের স্বামী। গত ৯ আগষ্ট একটি মামলায় আদালতে আতœসমর্পন করে জামিন প্রার্থনা করলে বিজ্ঞ আদালত জামিন না মন্জুর করে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দেন।
জানা গেছে, গত ২৯ জুলাই পৌরসভার কাউন্সিলর শাহ আলম মিয়ার বাড়িতে স্বশস্ত্র হামলার ঘটনায় এই কাউন্সিলর বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। টেকনাফ থানায় দায়েরকৃত মামলা নং-৭৫/৬৩১। কিন্তু প্রতিপক্ষও একটি পাল্টা মামলা দায়ের করে।

কাউন্সিলর শাহ আলম মিয়া জানান, কাউন্সিলর কহিনুরের স্বামী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী শাহ আলমের সাথে আমার নামের মিল থাকায় যত্রতত্র আমার পদবী ব্যবহার করে মাদক ইয়াবা পাচার করলে আমি মৌখিকভাবে প্রতিবাদ করি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শুক্রবার দিবাগত রাতে শাহ আলমের নেতৃত্বে একটি দল হামলা চালায়।

এই শাহ আলমের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। যার মধ্যে জি আর-১১১ তারিখ ২০মার্চ ২০১৪, জি আর-৪০/৬৪-তাঃ ১১/০৮/১৪, টেকনাফ থানা মামলা নং-১২ তাঃ ৫ইজুন-২০১৩, জিআর-১৯ তাঃ ১৪ জানুয়ারী-২০১৪, টেকনাফ থানা মামলা নং৭৫/৬৩১, তাঃ ৩০জুলাই-২০১৭ সহ মাদক ও অস্ত্র আইন সহ প্রায় ডজন খানেক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।

উক্ত শাহ আলমের বিরুদ্ধে নিজেকে পৌর কাউন্সিলর দাবী করে হুমকি ধমকি দিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি, অস্ত্রবাজি, চাঁদাবাজি, জিম্মি করে মুক্তিপন আদায় সহ বিস্তর অভিযোগ রয়েছে।