২ হাজার হজ যাত্রী নিতে পারবে না বিমান

biman_54735_1502265406.jpg

: বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও ক্যাপ্টেন (অব.) মোসাদ্দিক আহমেদ বলেছেন, এখন থেকে যদি আর একটি স্লটও বাতিল না হয়, তবু বিমান দুই হাজার হজ যাত্রীকে নিতে পারবে না। এ যাত্রীদের পরিবহনে সরকারকে দায়িত্ব নিতে হবে।

বুধবার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রধান কার্যালয় বলাকায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মোসাদ্দিক আহমেদ জানান, ই-ভিসাসহ নানা জটিলতায় এখন পর্যন্ত বিমানের ২১টি স্লট বাতিল হয়েছে। এ কারণে ৪ হাজার চারশ’ হজ যাত্রী নেয়া সম্ভব হয়নি। আর এতে বিমানের ৪৪ কোটি টাকা রাজস্ব আয় লোকসান হয়েছে।

এদিকে হজ যাত্রীদের নিরাপদ পরিবহনে বিমান চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দাবি করে বিমানের সিইও বলেন, হজ যাত্রী পরিবহনে আমরা সৌদি সরকার থেকে ১৪টি স্লট পেয়েছিলাম। জটিলতার কারণে ৭টির মেয়াদ চলে গেছে। তবে প্রয়োজনে নতুন করে আরও স্লট নেয়া হবে।

অবশ্য জটিলতার কারণে হজ যাত্রী পরিবহনে এবার বিমানকে মোটা অংকের লোকসান টানতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এ বছর সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় মোট হজযাত্রীর সংখ্যা ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন। হজযাত্রীদের সৌদি আরবে যাত্রার প্রথম ফ্লাইট পৌঁছে ২৪ জুলাই। শেষ ফ্লাইট ২৮ আগস্ট।

ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ৬ সেপ্টেম্বর ও শেষ ফিরতি ফ্লাইট ৫ অক্টোবর। এ বছর চাঁদ দেখা সাপেক্ষে হজ অনুষ্ঠিত হবে ১ সেপ্টেম্বর।

তবে, ভিসা জটিলতার কারণে এ বছর বিশাল সংখ্যক বাংলাদেশি হাজির হজ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বলে সূত্র জানায়।