Thursday, December 9, 2021
Homeটপ নিউজটেকনাফ পৌর শহরের সড়ক ও জনপথ সড়কের বেহাল দশাঃ যাত্রী সকল দুর্ভোগের...

টেকনাফ পৌর শহরের সড়ক ও জনপথ সড়কের বেহাল দশাঃ যাত্রী সকল দুর্ভোগের শিকার

মোঃ আশেক উল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ :
টেকনাফ-কক্সবাজার আঞ্চলিক সড়কের টেকনাফ শহরের প্রায় ২কিঃ মিটার সড়কের বেহাল অবস্থা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বিভিন্ন যানবাহন, পরিবহণ ও পথচারী যাতায়াত করছে। টেকনাফ পৌরসভার সীমানা উঠনী হতে জেলা পরিষদ ডাক বাংলো পর্যন্ত প্রায় ২ কিঃ মিটার (সড়ক ও জনপদে) সড়কের উভয় পার্শ্বে খাদে পরিনত হয়েছে। ফলে সড়কের উভয়মূখী বাস, ট্রাক ও বিভিন্ন যানবাহন ও পরিবহন একটি আর অন্যটিকে সহজে সাইট দিতে পারেনা। অনেক সময় যানজাট সৃষ্টি হয়। টেকনাফ ষ্টেশান, ভূমি অফিসের সামনে সড়ক খানখল্পকে পরিনত হয়ে যান চলাললের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। টেকনাফ হাসপাতাল ও পল্লী বিদ্যুতের সামনে সড়কের উভয় পাশ্বো মাটি সরে গিয়ে সড়কটি খাদে পরিনত হয় এবং অনেক সময় ছোট খাটো সড়ক দুর্গঠনাও ঘটে থাকে। খাদে পরিনত হওয়া সড়কের উভয় পার্শ্বে পাকা গাইড ওয়াল থাকলে খাদে পরিনত হতোনা এবং যানচলাচলের কোনও দূর্ঘটনা হতোনা বলে সচেতন যাত্রীদের অভিমত। গাইড ওয়াল হিসাবে বালিমিশ্রিত মাঠি দেয়ার কারণে বর্ষা- মৌসূমে সড়কের উভয় পার্শ্বে মাঠি সরে গিয়ে খাদে পরিনত হয়। এতে সরকারের প্রচুর অর্থ অপচয় ঘটে। সড়কের বেহাল অবস্থার প্রেক্ষিতে যানবাহন, পরিবহন ছাড়াও স্কুলগামী কোমলমতি ছাত্র/ছাত্রীরা, হাসপাতাল, প্রশাসন ও পল্লি বিদ্যুৎ মূখী যাত্রী ও পথচারী সহজে যাতায়াতের বাঁধার সম্মুখীন হচ্ছে। এতে করে অনেক সময় ঝুঁকিপূর্ণ সড়কে যানজাট দেখা দেয়। বিশেষ করে হাসপাতালমুখী রোগীরা তাৎকনিক চিকিৎসা সেরা নিতে বিড়ম্বনায় শিকার হয়। অপরাদিকে এর পাশা পাশি টেকনাফ পৌর শহরের নাইট্যংপাড়া বাস টার্মিনাল হতে টেকনাফ ষ্টেশান পর্যন্ত প্রায় ১কিঃ মিটার সড়কের মধ্যে যত্রতত্র স্থানে বাস, ট্রাক ও জীপ, দাড়িয়ে থাকার কারণে এ সমস্যা আরো প্রকট আকার ধারণ করে থাকে। উল্লেখ্য নাইট্যং পাড়া বাস ও ট্রাক ট্যার্মিনাল থাকলেও এটি ব্যবহার না করে সড়কের পাশে অবস্থান করে। এছাড়া সড়কের পাশ্বে বিভিন্ন যানবাহন অবস্থান করে। অপর দিকে সড়কের পার্শ্বে বেঙের ছাতার ন্যায় গাড়ীর গ্যারজ, মেরামত দোকান ও রাইসমিল গড়ে উঠার কারণে বাস ও ট্রাক মেরামতের নামে অবস্থান নেয়। যা আদৌ পরিবেশ সম্মত নয়। টেকনাফ ষ্টেশান এবং ভূমি অফিসের সামনে বর্ষার পানি চলাচলের ড্রেইন না থাকায় পানি সরাসরি রাস্তার উপর প্রবাহিত হয়। ফলে সড়কের উপর পানি জমে থাকার কারণে সড়কের মধ্যখানে পানি জমে থাকে। যাত্রীবাহী বাস পরিবহন ও পথচারীরা যাতায়াতের দুর্ভোগের শিকার হয়। সামনে পর্যটন মওসূম এর আগেই ২কিঃ মিটার সড়ক প্রশস্থ এবং মেরামত করা নিতান্ত প্রয়োজন মনে করছেন, পৌরবাসী। সড়কের বেহাল দশা দেখে মনে হচ্ছে, মরণ দশা সড়কটি হাতছানি দিয়ে ডাকছে, মৃত্যোর ফাঁদে পা না বাড়ায়।

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments