ভালোবাসা দিবসে ‘ভালোবাসা’ প্রত্যাখ্যান: কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা

faridpur_gunfight_police_33219_1481145569_39477_1487068100.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক :
ভালবাসা দিবসে ‘ভালবাসা’ প্রত্যাখ্যান করায় একটি হাসপাতালের কর্মচারী প্রেমিকা সাবিনা খাতুনকে (২৬) কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে তারই প্রেমিক।

মঙ্গলবার সকালে ভাঙ্গা গ্রীন টাওয়ারে অবস্থিত প্রতিবন্ধী হাসপাতালের ভেতরে এ ঘটনা ঘটে।

পাবনা জেলার সুজানগর থানার তেঘুপাড়া গ্রামের রজব আলীর ছেলে প্রেমিক আতাউর রহমান (৩০) জনসম্মুখে সাবিনাকে কুপিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

আহত ছাবিনা রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার আকরজানি গ্রামের ওহাব মাষ্টারের মেয়ে। তাকে ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, দুই তিন বছর আগে এরা দুজন ঢাকায় ভোক্তা অধিদফতরে চাকরীর জন্য ইন্টারভিউ দিতে যায়। সেখান থেকে তাদের পরিচয়। এরপর দু’জনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

এক বছর আগে সাবিনার সঙ্গে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় তাদেরই এলাকার ইঞ্জিনিয়ার জহুরুল ইসলামের সঙ্গে। এরপর সাবিনার প্রতিবন্ধী হাসপাতালে চাকরীও হয়।

গত ৪/৫দিন হল সাবিনা রাজবাড়ি থেকে বদলি হয়ে ভাঙ্গা অফিসে যোগ দেয়। বিয়ের খবর পেয়েও প্রেমিক আতাউর সাবিনার পিছু ছাড়েনি। সাবিনার খোঁজ নিয়ে সোমবার বিকালে আতাউর ভাঙ্গায় এসে অফিসে দেখা করে। পরদিন মঙ্গলবার সকালে সাবিনা অফিসে আসলে আবারও আতাউর অফিসে এসে দেখা করে। এসময়ে ছাবিনা প্রেম-ভালবাসা প্রত্যাখান করে। তখন আতাউর ক্ষিপ্ত হয়ে সাবিনাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

আহতের স্বামী জহুরুল ইসলাম জানান,আমার স্ত্রীর এখন গর্ভবতী। তারপরও ওই ছেলেটা পিছু ছাড়ছে না।

ভাঙ্গা হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার আবু দাউদ খাঁন জানান, সাবিনা খাতুনের গলায়, বুকে ও হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে। সে এখনো আশংকামুক্ত নয় ।