উখিয়ায় মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে গ্রামবাসীর মানব বন্ধন

.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি, উখিয়া :
উখিয়ার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের খেওয়াছড়ি এলাকায় পরিবেশ অধিদপ্তর কতৃক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে নারী পুরুষ ও শিশুরা এক বিশাল মানব বন্ধন করে মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন। মানব বন্ধন উত্তর প্রতিবাদ সভায় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিরা নিরহ মানুষকে মামলায় জড়ানোর দায়ী থেকে অব্যাহতি দেওয়ার দাবী জানান।
জানা গেছে, কক্সবাজার পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক মোঃ মুমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে নিরহ ৪ ব্যাক্তি খেওয়াছড়ি গ্রামের আব্দুল্লাহ (৪৫), দুদুমিয়া (৪০), ফরিদ আলম (৫০) ও মোঃ ইসমাইল এর বিরুদ্ধে গত ৮ ফেব্রুয়ারী উখিয়া থানায় পরিবেশ আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। স্থানীয় গ্রামবাসী মোঃ ডালিম মিয়া, মৌলভী মোঃ ইউনুছ, মোঃ আশরাফ আলী, মোঃ আমির হোসেন ও ছৈয়দ আলম বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক কে মিথ্যা তথ্য দিয়ে এলাকার নিরহ ৪ জন গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে এ মামলাটি দায়ের করেছে। মূলত ৩ টি মসজিদের এলাকার মানুষ মারা গেলে খেওয়াছড়ি গ্রামে কবরস্থানের পাশে নামাজে জানাযা পড়ার জায়গা না থাকায় পাহাড় কেটে সমতল করার জন্য এ পাহাড়টি স্থানীয় মসজিদ কমিটির সদস্য মৃত মকবুল আহম্মদের দুই ছেলে ছাবের আহম্মদ, সিরাজ মিয়া ও একই এলাকার মৃত ছৈয়দুর রহমানের ছেলে কাদির হোসেন কবরস্থানের পাহাড় কেটে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মান কাজে মাটি পাচার করছে। মূলত তাদেরকে পরিবেশ অধিদপ্তর মামলাতে না জড়িয়ে নিরহ লোকজনদেরকে মামলায় জড়ানোর কারনে গ্রাম বাসীরা ফুঁসে উঠছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে খেওয়াছড়ি কবরস্থান এলাকায় মামলা প্রত্যাহার করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে গ্রামবাসী। শত শত লোকজন এ সময় পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক মুমিনুল ইসলামের প্রতি জোর দাবী জানান এবং ঘটনাস্থলটি পরিদর্শন করে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনের জন্য আহব্বান জানান। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কক্সবাজার পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিদর্শক মোঃ মুমিনুল ইসলাম জানান, আমি সবে মাত্র কক্সবাজারে এসেছি, তাই মামলাটির ব্যাপারে অধিগতর তদন্ত করে দায়ী ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারন কক্সবাজারে যোগদান করার পর এটা আমার প্রথম মামলা বলে তিনি জানান।