নরসিংদীতে বাস-মাইক্রো সংঘর্ষে নিহত ১১

mun_39255_1486880313.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক :
নরসিংদীর বেলাবোতে যাত্রীবাহী বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী ও শিশুসহ ১১ জন নিহত হয়েছে। এসময় আহত হয়েছে আরো ১০ জন।

রোববার সকাল ৮টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উপজেলার দড়িকান্দি নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী।

এদিকে এ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ঘাতক বাসচালকের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় পুলিশ।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন- কিশোরগঞ্জের নিকলী থানার ছাতীর চরগ্রামের ফালু মিয়ার ছেলে মানিক মিয়া (৪৫), তার স্ত্রী মাফিয়া (৩৫) ও তার ছেলে অজ্ঞাত, একই এলাকার বধু মিয়ার ছেলে হাসান মিয়া, শব্দর আলীর ছেলে হীরা (৩২), জান্নানসহ (৩৮) আরো ৫ জন ।

বেলাবো থানার ওসি বদরুল আলম যুগান্তরকে জানান, সকালে ঢাকার কামরাঙ্গী চর থেকে ১৪জন যাত্রী নিয়ে কিশোরগঞ্জের নিকলী থানার ছাতীর চরগ্রামে যাচ্ছিল একটি হাইয়েস মাইক্রোবাস।এসময় ঘটনাস্থলে বিপরীতদিক থেকে আসা আগ্রদূত পরিবহনের একটি বাস অপর একটি অটোরিকশাকে ওভারটেক করতে গেলে ওই মাইক্রোবাসের সঙ্গে মুখমুখি সংঘর্ষ বাধে।

এসময় মাইক্রোবাসটি দুমড়ে-মুচড়ে ঘটনাস্থালেই দুই শিশু ও ৪ নারীসহ ১১ জন নিহত হয়। এতে আহত হয় কমপক্ষে ১০ জন।

খবর পেয়ে পুলিশ দমকল বাহিনী ও স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ভৈরবসহ আশপাশের হাসপাতালে ভর্তি করে।

বদরুল আলম জানান, এ ঘটনার পর ঢাকা-সিলেট মসহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় ১ ঘন্টা পর দুর্ঘটনাকবলিত যানবাহন সরিয়ে নিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ঘাতক বাসচালকের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ওসি।

স্থানীয় চেয়ারম্যান মোসলেহ উদ্দিন খান সেন্টুস্টু জানিয়েছে, দুঘটনার পর বিকট শব্দ আর চিৎকার শুনে লোকজন উদ্ধারে এগিয়ে আসে। কিন্তু হাসপাতালে পাঠানোর আগেই মাইক্রোবাসের ১১ যাত্রীই মারা যায়।