সচিবদের জন্য ১১৪ আবাসিক ফ্ল্যাট উদ্বোধন

PWD20170206185041-1.jpg

রাজধানীর ইস্কাটনে সিনিয়র সচিব, সচিব ও গ্রেড-১ কর্মকর্তাদের জন্য ১১৪ ফ্ল্যাট বিশিষ্ট তিনটি আবাসিক ভবন উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার বিকেল ৫টায় সাড়ে ৭ বিঘা জমির ওপর নির্মিত এ ভবনের উদ্বোধন করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।

আমলাদের জন্য নিরাপদ ও আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত আবাসনের জন্য উদ্যোগ নিয়েছে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের গণপূর্ত অধিদফতর। সচিবদের জন্য একই ধরনের আবাসন ব্যবস্থা করা হবে বলে জানা গেছে।

গণপূর্ত অধিদফতর সূত্র জানায়, রমনার ইস্কাটনে ৭ দশমিক ৬৩১ বিঘা সরকারি জমিতে বিদ্যমান পাঁচটি টেনামেন্ট হাউজ (১-৫নং) রয়েছে। সেখানে পাঁচজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বসবাস করেন। প্রকল্পের আওতায় এসব ভবন ভেঙে তিনটি ভবনে ১১৪টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে।

এতে ১১৪ জন সিনিয়র সচিব, সচিব ও গ্রেড-১ কর্মকর্তার পরিবারকে আবাসন সুবিধা দেয়া হবে। এতে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২৮১ কোটি ৩২ লাখ টাকা। ২০১৫ সালের জুলাই থেকে প্রকল্পের কাজ শুরু হয়ে ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে শেষ হবে।

গণপূর্ত অধিদফতর সূত্র জানায়, প্রকল্পের আওতায় তিনটি ভবন নির্মাণ করা হবে। প্রতিটি ২০ তলা ভবনে ৩৮টি করে ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। সিনিয়র সচিবদের জন্য ৩৪৯০ বর্গফুটের ৩৮টি ফ্ল্যাট ও সচিবদের জন্য ৩৪৭০ বর্গফুটের ৩৮টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। অন্যদিকে গ্রেড-১ কর্মকর্তাদের জন্য ৩৪৫৫ বর্গফুট আয়তনের ৩৮টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে।

এসব ফ্ল্যাটে চারতলা বিশিষ্ট স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও কমিউনিটি বিল্ডিং নির্মাণ করা হবে। এর আয়তন ৩৭১ দশমিক ৬০ বর্গমিটার। থাকছে সুইমিংপুল লন, টেনিস ও ব্যাডমিন্টন কোর্ট, গভীর নলকূপ, এসটিপি, ড্রিংকিং ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট। পাশাপাশি পানি সরবরাহ ও বিদ্যুতায়নের আধুনিক ব্যবস্থা থাকবে।

জানা গেছে, বর্তমান সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিবরা বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছেন। ওই সব ভবনে পর্যাপ্ত আয়তন ও নিরাপত্তা নেই। এসব কর্মকর্তা রাষ্ট্রের অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ করেন। তাদের কাজে অনেক স্পর্শকাতর তথ্যও থাকে, যা দেশের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই তাদের নিরাপত্তার খাতিরে একই স্থানে আবাসনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।