টেকনাফ বাহারছড়ায় গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় বৃদ্ধা মহিলার লাশ উদ্ধার

.jpg

মোজাম্মেল হক বাহার, শামলাপুর॥
টেকনাফ বাহারছড়ায় গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় হালিমা খাতুন নামক ৫৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা মহিলার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
৪ ফেব্্রুয়ারী দুপুর ১২ ঘটিকার সময় শামলাপুর পুরানপাড়া সমুদ্র সৈকতের একটি টানা জাল রাখার জন্য তৈরি একটি ঝুপড়ি বাসা থেকে গলায় উড়না পেচানো ও মুখের উপর জালের পুটলি রাখা অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের পূর্বে বাসাটি বাহিরে তালাবদ্ধ অবস্থায় ছিল বলে জানান এলাকাবাসী।

এদিন সকালেও হালিমা খাতুন সৈকতে নাস্তা বিক্রি করেছে বলে জানান এলাকাবাসী।

নিহত হালিমা স্থানীয় মৃত মকবুল আহাম্মদের স্ত্রী ও ৮ সন্তানের জননী। নিহতের সন্তান এবং স্থানীয়রা জানান দীর্ঘদিন
ধরে বৃদ্ধা হালিমা খাতুন সৈকতে নোকার মাঝি-মাল্লাদের নাস্তা-পানীয় বিক্রি আর পাশাপাশি দিনের বেলায় ১০/১৫টি
টানা জাল ও সরঞ্জামাদি পাহারার দিয়ে আসছিল। পূর্বে এ দায়িত্বে ছিল তার স্বামী।

নিহতের সন্তানেরা এবং এলাকাবাসীরা জানান, ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে স্থানীয় শামশুল আলমের পুত্র চিহ্নিত চোর শফি উল্লাহ। ইত:পূর্বে শফি উল্লাহ নিহত হালিমা খাতুনের দোকান চুরি করেছিল। এলাকাবাসীরা জানান মৃত্যুর পূর্বে শফি উল্লাহ নাকি হালিমা খাতুনকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছিলেন।

টানা জালের মালিকেরা জানান, শফি উল্লাহর ভয়ে হালিমা খাতুন পাহারাদারের দায়িত্বটি ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন।

শফি উল্লাহ এলাকায় বহু ঘর-বাড়িতে চুরি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়েছিল বলেও জানা যায়। বিকাল ৫ঘটিকার সময় লাশটি ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার প্রেরণ করেন।