মিয়ানমার নৌ-বাহিনী কর্তৃক অপহৃত বাংলাদেশী ৬ জেলের ফেরার প্রত্যাশায় রয়েছে পরিবারের লোকজন

Teknaf-pic-01.02.17.jpg

মোঃ আশেকউল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ :

বাংলাদেশী ৬ জেলে মিয়ানমার কারাগারে অর্ধাহারে অনাহারে অমানবিক জীবন যাপন করছে। তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে এ অভিযোগ উঠেছে। ২০১৬ সালে নভেম্বর মাসে সেন্টমার্টিনদ্বীপের দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের জলসীমানায় প্রতি দিনের মত ফিসিংবোটসহ ৬ জেলে মাছ আহরণ করতে গেলে মিয়ানমারের নৌ-বাহিনী টহল দল এসে তাদেরকে অস্ত্রের মূখে মুক্তিপনের উদ্দেশ্যে ধরে নিয়ে যায়। অপহৃত ৬ জেলেদের স্বদেশে ফিরে নিয়ে আসতে জেলে পরিবারেরর লোকজন স্থানীয় টেকনাফ ২ বর্ডার গার্ড বিজিবির অধিনায়কের বরাবরে লিখিত আবেদন করেছেন। আবেদনে ৬ জেলে পরিবারের পক্ষ থেকে স্বাক্ষরিত জুলেখা বেগম উল্লেখ করেন, তারা সেন্টমাটিনদ্বীপের বিভিন্ন পাড়ার স্থায়ী অধিবাসী এবং বাংলাদেশী নাগরিক। এরা হচ্ছেন, সেন্টমাট্র্নিদ্বীপের হাবিরজোর পাড়ার সাইর মোহাম্মদের পুত্র হামিদ হোসেন, টেকনাফ পৌরসভার ০৫নং ওয়ার্ডের অলিয়াবাদ এলাকার খুইল্যা মিয়ার পুত্র মোঃ রশিদ উল্লাহ, দক্ষিণ পাড়ার লাল মিয়ার পুত্র সাদ্দাম হোসেন, নজরুল পাড়ার অছিউর রহমানের পুত্র ফজল আহমদ, কোনার পাড়া মোঃ ইসমাইলের পুত্র মোঃ হোসেন ও গলাচিপা পাড়ার মৃত আলী চানের পুত্র হাশিম। সে দেশের নৌ-বাহিনী সীমান্তরক্ষী কর্তৃক অপহৃত বাংলাদেশী পেশাদার ৬ জেলে পরিবারের পরিজনের আয় রোজগার না থাকায় তারা অর্ধহার ও অনাহারে মানবেরত জীবন যাপন করছে এবং অনেক সময় অর্তনাত করছে ওরা কবে নাগাদ ফিরে আসবে। এ আশায় তারা দিনগুজরান করছে।