উখিয়ায় অবাধে ব্যবহার হচ্ছে নিষিদ্ধ পলিথিন

unnamed-1-1.jpg

এম, এস রানা :
উখিয়া উপজেলার হাট-বাজারে অবাধে বিক্রি ও ব্যবহার হচ্ছে নিষিদ্ব ঘোষিত ।
দীর্গদিন উপজেলা প্রশাসনের কোন প্রকার সঠিক অভিযান পরিচালনা না করায় এর ব্যবহার দিন দিন আশংকা জনক হারে বৃদ্বি পাচ্ছে।
সরেজমিনে দেখা যায় উপজেলার দারোগা বাজার, সদর ষ্টেশন,কোটবাজার, মরিচ্যা বাজার, সোনার পাড়া বাজার, পালং খালী বাজার, বালুখালী বাজার এবং প্রতান্তঅঞ্চলে গড়ে উঠা মিনি বাজার গুলোর হোটেল, রেস্তোরা, মাছ-মাংস সহ প্রতিটি দোকানে রয়েছে পর্যাপ্ত পলিথিন ব্যাগ। এসব পলিথিন দিয়ে ক্রেতাদের খাদ্যদ্রব্য সহ বিভিন্ন ধরনে মালামাল সরবরাহ করে। এ ছাড়াও জীবন রক্ষাকারি ওষধের দোকান ফার্মেসীতে রোগীদের ওষধ দেয়া হচ্ছে নিষিদ্ব পরিথিন ভরে যার কারনে পরিবেশ মারাত্নক হুমকির শিকার হচ্ছে। এসব নিষিদ্ব ঘোষিক পলিথিনের অধিকাংশই আসে পার্শবর্তি দেশ মায়ানমার থেকে। প্রতিদিন লাখ লাখ পলিথিন চোরাই পথে এসে উখিয়ার হাটবাজার সয়লাব হয়ে গেলেও সংশ্লিষ্ট পরিবেশ অধিদপ্তরের কোন মাথাব্যথা নেই। উপজেলায় রয়েছে ৪/৫ জনের একটি সক্রিয় পলিথিন চোরাচালানের সেন্ডিকেট, তারা সীমান্তে বিভিন্ন পযেন্ট ব্যবহার করে সীমান্ত রক্ষীদের চোঁখ ফাঁকি দিয়ে দেশে মওজুদ করে রাখে এবং কৌশলে পৌছে দিচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীদের হাতে, ফলে সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়ছে দেশ ও পরিবেশের মারাত্নক ক্ষতিকারক নিষিদ্ব পলিথিন।
দেশ ও জাতীর সার্থে অভিযান পরিচালনা পুর্বক নিষিদ্ব ঘোষিত পলিথিনের অবাধ বিচরন, আগ্রাসন বন্ধের পদক্ষেপ নেয়া অতি জরুরী।