রোহিঙ্গা মদদ দাতা ১৬৮জনের তালিকা: হ্নীলা ইউপি মেম্বার জামাল উদ্দিনকে জড়ানোয় ইউনিয়ন পরিষদের প্রতিবাদ ও ব্যাখ্যা

Teknaf-Pic-A-24-01-17.jpg

গত ১৯ ও ২০ জানুয়ারী বিভিন্ন জাতীয়, স্থানীয় এবং অনলাইন সংবাদপত্রে প্রকাশিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে প্রেরিত রোহিঙ্গাদের সহায়তাকারী ১৬৮ দালালের মধ্যে টেকনাফের ১১৪ জন সংবাদাংশের টেকনাফস্থ হ্নীলা ইউনিয়ন অংশের উক্ত তালিকায় হ্নীলা ইউপির ৫নং ওয়ার্ডের নির্বাচিত জামাল উদ্দিন মেম্বারের নাম দেখে আমরা বিস্মিত এবং হতবাক হয়েছি।
এই ব্যাপারে হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট মহলের সদয় অবগতির জন্য একটি ব্যাখা প্রদান করা হল।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে শপথ গ্রহণের মাধ্যমে দায়িত্বভার গ্রহণের পর হতে সকল সদস্য/সদস্যার কর্মকান্ড সুক্ষèদৃষ্টির মাধ্যমে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। বিগত মাস দুয়েক আগে মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর নির্যাতনের কারণে টেকনাফ-উখিয়ার বিভিন্ন সীমান্ত হতে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঘটে। জামাল উদ্দিন মেম্বারের নির্বাচনী এলাকা জালিয়াপাড়া, নাটমোরাপাড়া পয়েন্ট হতে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে বাঁধা দেওয়ায় স্থানীয় কতিপয় দালালের সঙ্গে জামাল উদ্দিন মেম্বারের মনোমালিন্য এবং ঝগড়া-ঝাটির উপক্রম হয়। এসব বিষয়ে তার কর্মরত পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ার জেরধরে এবং নির্বাচনে পরাজিত প্রতিদ্বন্দি মহলের ইন্দনে কতিপয় বিজিবি সদস্যের সাথে পর্যন্ত সম্পর্ক তিক্ত হয়ে উঠে। এই সুযোগে শত্রুমহল প্রতিহিংসার বশবতী হয়ে এবং প্রশাসনিকভাবে নাজেহাল করার জন্য রোহিঙ্গা পারাপারের দালালের তালিকায় জামাল উদ্দিন মেম্বারের নামটি জড়িয়ে দেয়। এই ওয়ার্ড মেম্বারকে বিপদে ফেলার জন্য এখনো নানা চক্রান্ত বিদ্যমান রয়েছে। আমরা হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে জামাল উদ্দিন মেম্বারের নাম উক্ত তালিকা হতে বাদ দিয়ে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে এলাকাবাসীর উন্নয়ন ও সেবা দান কার্যক্রম অব্যাহত রাখার উদাত্ত আহবান জানাচ্ছি।
উক্ত অভিযোগের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে নিরীহ লোকজনের হয়রানিরোধে বিষয়টি পুনঃতদন্ত প্রয়োজন বলে মনে করি। আমরা সমন্বিতভাবে উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত টিম গঠন করে সীমান্তে বিদ্যমান প্রকৃত অপরাধীদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনার জন্য সরকারের উর্ধ্বতন মহলের দ্রুত হস্তক্ষেপ ও আন্তরিক সহায়তা কামনা করছি।
নিবেদক :
চেয়ারম্যান ও
প্যানেল চেয়ারম্যান-১
হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদ।