উখিয়া বঙ্গমাতা মহিলা কলেজের ভবন নির্মানে ত্রুটি, উদ্বেগ

ukhiya-pic_b.college.jpg

মুহাম্মদ হানিফ আজাদ, উখিয়া :
বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়নে ব্যাপক পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। উক্ত পরিকল্পনার অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালের ৩ সেপ্টেম্বর উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয় খেলার মাঠের জনসভা থেকে উখিয়া বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজ প্রাঙ্গনে একটি পুর্নাঙ্গ আইটিসি ভবন নির্মানের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী দ্রুত এ ভবনের নির্মান কাজ শুরু হয়। উখিয়া বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কলেজের পূর্ব পাশে^্ ৪ তলা ভবনের প্রথম পর্যায়ের ২ তলা পর্যন্ত নির্মান কাজের দ্বায়িত্ব পান কক্সবাজারের ঠিকাদার জসিম উদ্দিন। প্রায় ১ কোটি ৪৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ২ তলা ভবনের কাজ শেষ হয়েছে মাসেক দু’য়েক আগে। কিন্তু ঠিকাদার জসিমের বিরুদ্ধে ভবন নির্মানে ব্যাপক অনিয়ম ও সিডিউল অনুযায়ী কাজ না করার অভিযোগ উঠেছে। বিশেষ করে ৪ তলা ভবনের ২য় তলা থেকে উপরের তলা গুলো নির্মানে যে রড রাখার কথা ছিল তা রাখা হয়নি। তাছাড়া ভবন নির্মানে সুক্ষ কারচুপির আশ্রয় নিয়ে টিকাদার জসিম ভবন নির্মানে ব্যবহার করেছে অত্যন্ত নিম্নমানের নির্মান সামগ্রী দিয়ে। তাই নবনির্মিত ভবনটি যে কোন মুহুর্তে ধ্বসে পড়ার আশংকা প্রকাশ করেছেন কলেজ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ। এ ব্যাপারে বঙ্গমাতা মুজিব মহিলা কলেজের অধ্যাপক ও কক্সবাজার জেলা পরিষদের ১৪ নংওয়ার্ডের সদস্য হুমায়ুন কবির চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়নে ব্যাপকভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। আইটিসি মন্ত্রনালয়ের অধিনে উখিয়া বঙ্গমাতা মহিলা কলেজে আইটিসি ভবন পাওয়া সত্যিই গর্ভের। এখানে তথ্য প্রযুক্তির বিষয়ে প্রশিক্ষন দেওয়ারও কথা রয়েছে। এরকম একটি গুরুত্বপূর্ণূ ভবনে নির্মান ত্র“টি উদ্বেগের বিষয়। তিনি যথাযত তদন্ত পূর্বক ভবনটিতে যে সমস্ত ত্র“টি ধরা পড়েছে তা চিন্থিত করে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের নিকট দাবী জানান। অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে টিকাদার জসিম উদ্দিনের মোবাইল নাম্বারে একাধিক বার কল করে চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজার জেলা নির্বাহী প্রকেীশলী সমেত কুমার অজেত দাশের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, উখিয়া বঙ্গমাতা কলেজের ত্র“টিগুলো তেমন ঝুকিপর্ণ নয়, তবুও আমরা বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নিয়েছি। ইতিমধ্যে আমি ইঞ্জিনিয়ার পাঠিয়ে খবর নিয়েছি। প্রয়োজনে আমি নিজে যাব।