উখিয়ায় ১০ শতক সরকারী বন ভুমির মূল্য লাখ টাকা

.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি, উখিয়া |
উখিয়ার ইনানী রেঞ্জের আওতাধীন রাজাপালং বন ভিটের অধীনে বাঘঘোনা এলাকায় সরকারী বন ভুমি জবর দখল পূর্বক বেছা বিক্রি করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। ১০ শতক বন ভুমির মূল্য নির্ধারন করা হয়েছে ১ লাখ টাকা। এ ভাবে উখিয়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সরকারী ১শত টাকার ষ্টাম্প মূলে ক্রয় বিক্রয় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আর এতে সংশ্লিষ্ট বন বিট কর্মকর্তা মোঃ নুরুল আবছার নিরব দর্শকের ভ’মিকায় রয়েছে। জানা গেছে, উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের তুতুরবিল বাঘঘোনা নামক এলাকার মৃত সের মোহাম্মদের ছেলে ছৈয়দ নুর তার ছেলে মাহমুদুল হক কে সরকারী বন ভ’মির ১০ শতক জমি বিক্রি করেছে ১লাখ টাকায়।
জানা গেছে, উখিয়া ও ইনানী রেঞ্জের আওতায় ৪০ হাজার একর সরকারী বন ভুমি থাকলেও তা এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে। স্থানীয় হেডম্যান ভিলিজারদের কারনে ভুমি দস্যুরা হাজার হাজার একর বন ভুমি দখল করে নিচ্ছে। পরে তা উচ্চ মূল্য দিয়ে তা হাত বদল করছে। এ ধরনের অহর অহর ঘটনা ঘটছে, ইনানী, সোয়াংখালী, মাদারবুনিয়া, নিদানিয়া, মোঃ শফিরবিল, রাজাপালংয়ের মধুর ছড়া, মাছ কারিয়া, টি এন্ডটি , তুতুরবিল, হলদিয়া পালং, রতœাপালং এলাকায় টাকার বিনিময়ে তা বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। জানা গেছে, তুতুরবিল বাঘঘোনা গ্রামের সের মোহাম্মদের ছেলে ছৈয়দ নুর কছ ৬৪৬২৫৭৯ সরকারী ১শ টাকার মূল্যে চুক্তি নামা করে ১০ শতক সরকারী বন ভুমির জমি ১ লাখ টাকায় বিক্রি করেছে। জানতে চাইলে ছৈয়দ নুর বলেন, প্রয়োজনে আমার দখলকৃত জমিটি আমার ছেলে মাহমুদুল হক কে বিক্রি করেছি। ইনানী রেঞ্জ কর্মকর্তা ইব্রাহিম খলিল বলেন, এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।