কিউই বাউন্সে ২৮৯ রানে থামল টাইগাররা

nurul_hasan_37233_1484891832.jpg

টেস্ট অভিষেকে ৪৭ রানের ইনিংসের পথে নুরুল হাসান

নিউজিল্যান্ডের উইকেট সাধারণত পেসার স্বর্গ। সেই সঙ্গে কিউই দলে রয়েছেন টিম সাউদি, ট্রেন্ট বোল্ট আর নেইল ওয়েগনারদের মতো পেসার।

কিউই পেসারদের বাউন্সার সামাল দিয়ে প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে সবক’টি উইকেট হারিয়ে ২৮৯ রান করতে সমর্থ হয়েছে বাংলাদেশ।

শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে টসে হেরে ব্যাট করতে নামে সফরকারীরা।

শুরুতে দুই উইকেট হারালেও অনেকদিন পর হাসছিল সৌম্য সরকারের ব্যাট। সাকিব আল হাসানের সঙ্গে তার ১২৭ রানের জুটি ভালো কিছুরই ইঙ্গিত দিচ্ছিল।

ওপেনার সৌম্যের পর ফিফটি করেন সাকিব। কিন্তু বোল্টের শিকার হয়ে ১০৪ বলে ৮৬ রান করেই থামে এই ওপেনারের ইনিংস। অনেক দিন পর রানে ফেরা সৌম্য ফেরেন শতরানের অতৃপ্তি নিয়েই।

সৌম্যের পর নামা সাব্বির রহমান ৮ বলে ৭ রান করে বোল্টের বলে সাউদিকে ক্যাচ দিয়ে আউট হন। এরপরই দলীয় ১৭৯ রানের মাথায় ৫৯ রান করে সাউদির বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন সাকিব আল হাসান।

মাত্র ১৫ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের স্কোর দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ১৭৯ রান। এতে চাপে পড়ে যায় টাইগার শিবির।

এরপর জুটি গড়েন দুই অভিষিক্ত নুরুল হাসান ও নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু চা বিরতির পর সাউদির বাউন্সারে শান্তর (১৮) বিদায়ে ভাঙে ৫৩ রানের প্রতিরোধের জুটি।

শান্তর বিদায়ের পরে মাঠে নামেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তবে ক্রিজে থিতু হতে পারেননি তিনি। যেন ব্যাটিংই ভুলে গেছেন এই টাইগার অলরাউন্ডার। নেইল ওয়াগনারের বল ছাড়তে গিয়ে বোল্ড হন মিরাজ (১০)।

এরপরও একপ্রান্ত আগলে রেখে খেলছিলেন অভিষিক্ত উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান। অর্ধশতক থেকে ৩ রান দূরে থাকতে তাকে ফেরান বোল্ট। সাউদির বাউন্সারে উইকেট দিয়ে আসেন তাসকিন আহমেদ (৮)।

পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বি মাটি কামড়ে থাকলেও রান তেমন বাড়েনি। শেষ পর্যন্ত রুবেল হোসেনের ২১ বলে অপরাজিত ১৬ রানের সুবাদে টাইগারদের প্রথম ইনিংস ২৮৯ রান স্পর্শ করে। ৮৪.৩ ওভারে বাংলাদেশের ইনিংস গুটিয়ে গেলে দিনের খেলা শেষ ঘোষণা করেন দুই আম্পায়ার।

এর আগে ইনিংসের চতুর্থ উভারে সাউদির করা একটি বাউন্সারে অনর্থক খোঁচা মেরে উইকেটরক্ষক ওয়াটলিংয়ের তালুবন্দি হন তামিম ইকবাল (৫)। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ব্যক্তিগত ১৯ রান ও দলীয় ৩৮ রানের মাথায় বোল্টের বলে খোঁচা মেরে উইকেটরক্ষকের হাতে সহজ ক্যাচ তুলে দেন।

এদিন উইকেটরক্ষকের হাতে তালুবন্দি হয়ে সাজঘরে ফেরেন চার টাইগার ব্যাটসম্যান। এছাড়া স্লিপেও তুলেছেন একাধিক ক্যাচ। সাউদি, বোল্ট আর ওয়েগনারদের বাউন্সার সামাল দিতে হিমশিম খায় টাইগার ব্যাটসম্যানরা।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে সাউদি ৫টি, বোল্ট ৪টি আর ওয়েগনার ১টি উইকেট নেন।

প্রথম টেস্টে ইনজুরিতে পড়ে দল থেকে ছিটকে পড়েন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, ওপেনার ইমরুল কায়েস এবং মুমিনুল হক। অভিষিক্ত দুজনের সঙ্গে একাদশে ফিরেন সৌম্য সরকার ও রুবেল হোসেন। একাদশ থেকে বাদ পড়েন শুভাশিষ রায়।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ৭ উইকেটের ব্যবধানে হেরে সিরিজে ১-০ তে পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ।