নাইক্ষ্যংছড়িতে পাহাড় ধ্বসে যুবকের মৃত্যু

194132mrittu-400x220_16819.jpg

শামীম ইকবাল চৌধুরী, নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবান)থেকেঃঃ
নাইক্ষ্যংছড়িতে সিন্ডিকেট করে অবৈধ ভাবে পাহাড় কর্তনের সময় এক যুবকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারী) সন্ধ্যায় উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের নয়াপাড়া নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত যুবকের নাম খায়রুল বশর (১৯)। সে নয়াপাড়া এলাকার মৃত সোনালীর ছেলে। এক মাসের ব্যবধানে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হওয়ায় এলাকার পরিবেশবাদী মহলের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনার বিষয় নিশ্চিত করেছেন ঘুমধুম ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের জনৈক আব্বাস উদ্দিন, নুরু, কামাল উদ্দিন, আহমদ কবির, নুর হোসেন, আবদু শুক্কুরসহ অন্তত ১১জনের একটি সিন্ডিকেট ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে দীর্ঘদিন ধরে হেডম্যানপাড়া, ঘোনারপাড়া, তুমব্রু, নয়াপাড়া, কাষ্টম সংলগ্ন, পশ্চিমপাড়ায় অবৈধ ভাবে পাহাড় কর্তণ করে মাটি বিক্রি করে আসছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে নয়া পাড়া এলাকায় পূর্বেকার ন্যায় পাহাড় কর্তনের সময় মাটি ধ্বসে পড়লে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় খায়রুল বশরের। একই ঘটনায় গুরুতর আহত হয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে পাহাড় কর্তণ কাজে ব্যবহৃত ট্রাক ড্রাইভার সমিরন বড়–য়া (৪৫)। সে উখিয়া উপজেলার রাজাপালং এলাকার সুবধন বড়–য়ার ছেলে।
উল্লেখ্য, গত এক মাস পূর্বে একই ভাবে পাহাড় কর্তনের সময় জয়নাল আবেদীন নামে এক শ্রমিক মাটি চাপা পড়ে মৃত্যু ঘটে। ওই সময় মোটা অংকের টাকায় ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়া হয়।
এ বিষয়ে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস,এম সরওয়ার কামাল বলেন- পাহাড় ধ্বসে যুবকের মৃত্যু বিষয়টি জেনেছি। পাহাড় কাটার সাথে যেই জড়িত হউক না কেন, তাদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্ত মূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।