বেড়েছে এ প্লাস বাড়েনি শিক্ষার গুণগত মান

saiful-islam.jpg

সাইফুল ইসলাম::: কি হবে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের! যারা আজ পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেই অতি সহজে এ প্লাস পাচ্ছে কিন্তু পরবর্তীতে যদি মান সম্মত বিদ্যা অর্জনের জন্য গুণ সম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ালেখার সুযোগ না পায়। এমনিতে আসন সংখ্যার অপ্রতুলতা, ভর্তি বাণিজ্য, ভর্তির ক্ষেত্রে কিছু কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বজনপ্রীতি, মান ও গুণসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ও অভিভাবকরা আজ হতাশায় পড়েছেন। পরীক্ষায় এ প্লাস পাওয়া যত সহজ ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে মান ও গুণসম্মত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়ালেখার সুযোগ পাওয়াটা ততই কঠিন। আজকাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে সেভাবে পড়ালেখার ভালো পরিবেশ নেই। বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা মূলত কোচিং বাণিজ্য ও প্রাইভেট বাণিজ্যের মধ্যে ব্যস্ত থাকায় অাগেরকার মতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষার্থীরা যথাযথ শিক্ষা থেকে প্রতিনিয়ত বঞ্চিত হচ্ছে। যদিও সরকার কোচিং ও প্রাইভেট বাণিজ্য বন্ধে হার্ডলাইনে। এরপরও কিছু কিছু শিক্ষক বেশী অর্থ প্রাপ্তির লোভে এই ধরনের বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন গোপনে আবার কিছু কিছু ক্ষেত্রে প্রকাশ্যে। শিক্ষকরা বিদ্যালয়ে আসা যাওয়া ও মাস শেষে বেতন উত্তোলনে ব্যস্ত। নিয়মনীতি রক্ষার্থে পুঁথিগত বিদ্যা দেওয়া ছাড়া শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশের জন্য নেওয়া হয়না আলাদা ক্লাস বা অতিরিক্ত কোন জ্ঞান চর্চার ব্যবস্হা। যার দরুন শিক্ষার্থীরা ভর্তিসহ অন্য কোন প্রতিযোগীতা মূলক পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ভালো ফলাফল বয়ে আনতে পারছে না। এর জন্য শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবকরাও কম দায়ি নয়। অাজকাল অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের বিদ্যালয়ে ভর্তির করানোর পর তাদের দায়িত্ব শেষ বলে মনে করে। কিন্তু বিদ্যালয়ে তাদের সন্তানদের কি পড়ানো বা শিখানো হচ্ছে তা নিয়ে কোন ধরনের মাথা ব্যথা নেই। সন্তান যে এ প্লাস পেয়েছে এতেই তারা সন্তোষ। আর চলে মিষ্টি বিতরন ও ভূরিভোজের মতো লোকজন দেখানো আয়োজন। কিন্তু সন্তানরা যে প্রতিযোগীতামূলক পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ভালো কোন ফলাফল বয়ে আনতে পারছে না সে দিকে তাদের কোন ধরনের খেয়াল নেই। আবার অনেক অভিভাবক এই ধরনের পরিস্হিতির জন্য হতাশ হলেও আশাবাদী । তাদের মতে সরকার যেখানে শিক্ষার মান উন্নয়নে যুগোপযোগী ব্যবস্হা নেওয়ার পাশাপাশি শিক্ষকদের বেতন ভাতা বৃদ্ধিসহ নানা ধরনের উদ্যোগ নিচ্ছেন তাহলে কেন শিক্ষার মান বাড়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশ হবেনা? শিক্ষার মান উন্নয়নে ও আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিকে আরো বেশী সক্রিয় হওয়ার পাশাপাশি অভিভাবকদেরকে আরো বেশি সচেতন হতে হবে। শিক্ষকদের আরো বেশী শৃঙ্খলা ও নিয়মনীতির আওতায় এনে পুঁথিগত শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের আবদ্ধ না রেখে বাহ্যিক জ্ঞানের অধিকারী হিসেবে গড়ে তুলার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সহপাঠক্রমিক কাজ চর্চা করানো আজ একান্ত জরুরী হিসেবে মনে করেন সচেতন মহল।

লেখক- সাইফুল ইসলাম,নিজস্ব প্রতিনিধি, আলোকিত উখিয়া।