টেকনাফ স্থলবন্দর এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্ক বিপর্যয় বিপাকে ব্যবসায়ীরা

www.bonikbarta.com_.jpg

আবুল কালাম আজাদ, টেকনাফ |
দীর্ঘ দু’মাস পর্যন্ত টেকনাফ স্থল বন্দর এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্কের বিপর্যয় ঘটেছে। ফলে ব্যবসায়ীসহ বন্দরের নিয়োজিত সকল স্তরের লোকজন পড়েছে বিপাকে। বন্দর এলাকা ব্যাতিত সকল স্থানে নেটওয়ার্ক সচ্ছল রয়েছে বলে স্থানীয় লোকজন জানায়। বন্দর এলাকায় হঠাৎ কেন নেটওয়ার্ক বিপর্যয় ঘটছে সকলের মুখে মুখে প্রশ্ন। যেহেতু এ বন্দর হতে সরকার প্রতি মাসে কোটি কোটি টাকার রাজস্ব আদায় করছে। ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন স্তরের লোকজন মোবাইলের মাধ্যমে ব্যবসায়ীক লেনদেন সহ নানাবিধ কর্মকান্ড করে থাকে। দীর্ঘ দু’মাস পর্যন্ত নেটওয়ার্ক না থাকায় ব্যবসায়ীরা অনেক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে বলে জানায়। এদিকে টেকনাফে কর্মরত বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানীর এজেন্ট অফিসদেরকে অবহিত করার পরও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে বন্দরের লোকজন জানায়। টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে আমদানী-রপ্তানী, ইমিগ্রেশন, কোয়ারেন্টাইন ও শ্রমিক সংক্রান্ত বিষয়ে দৈনিক কর্মকান্ড হয়। এখানে লেনদেনের জন্য কোন ব্যাংক শাখা না থাকায় টেকনাফে চলে আসতে হয়। ব্যবসায়ীরা আমদানী-রপ্তানীর মালামাল লোড-আনলোড ও গোদামজাত করতে গিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা বন্দরে কাটাতে হয়। টেকনাফে এসে ব্যাংকিং লেনদেন করা সম্ভব হয় না। মোবাইলের মাধ্যমে কাজ সমাধা করতে হয়। অপর দিকে করিডোরের গবাধী পশুর রাজস্ব প্রদানে মোবাইলের মাধ্যমে করতে হয়। এছাড়া সমস্ত ব্যবসায়ীক কর্মকান্ড অনলাইনের মাধ্যমে সমাধা করতে হয়। মোবাইল নেটওয়ার্ক না থাকায় বন্দরে নিয়োজিত সকল শ্রেণীর লোকজনের নাভিশ্বাস উঠছে। পাশাপাশি বন্দরের নিরাপত্তা বিষয়েও মোবাইল নেটওয়ার্কের প্রয়োজন। উল্লেখিত সংক্রান্ত বিষয়ে দ্রুত কর্মকান্ড সমাধানের জন্য মোবাইল নেটওয়ার্ক খুবই জরুরী। সুতরাং এ বিষয়ে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য স্থানীয় প্রশাসন ও মোবাইল কোম্পানীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন বন্দরে নিয়োজিত সকল ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন শ্রেণীর লোকজন।