টেকনাফের আনসার ক্যাম্পের লুট হওয়া অস্ত্রসহ ১০টি অস্ত্র ও ১৮৯ রাউন্ড গুলি নাইক্ষংছড়ির পাহাড়ী এলাকা থেকে উদ্ধার

nikkoncari-pic_4-1.jpg

অভিযান চলবে আরো ২দিন

রফিক মাহমুদ, উখিয়া
টেকনাফের আনসার ক্যাম্পের লুট হওয়া ৫টি অস্ত্র সহ ১০টি অস্ত্র ও ১৮৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে র‌্যাব। সোমবার উখিয়ার কুতুপালং এলাকা থেকে গ্রেফতার দুই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে নিয়ে মঙ্গলবার ভোর রাত থেকে বান্দরবান জেলার নাইক্ষংছড়ির তুমব্রু পাহাড়ী এলাকায় অভিযান চালিয়ে এসব অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করে র‌্যাব ও আনসার সদস্যরা।
পরে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঘটনাস্থলেই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অভিযানের ব্রিফিং করা হয়। এসময় প্রেস ব্রিফিং করেন র‌্যাব ডিজি বেনজির আহমেদ ও আনসার ডিজি মিজানুর রহমান। তারা বলেন, পাহাড়ি অঞ্চলের গভীর অরন্যের সম্ভাব্য দুটি পাহাড় ঘিরে রেখেছে র‌্যাব ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা। সেখানে আরও দুদিন অভিযান অব্যাহত থাকবে।

তারা আরও জানান, আনসার ক্যাম্পে হামলা ও অস্ত্র লুটের ঘটনায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ এ পর্যন্ত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

সোমবার রাত ৯টার দিকে র‌্যাবের একটি দল উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার করে। তাদের বিরুদ্ধে টেকনাফের নয়াপাড়ার রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসার ব্যারাকে হামলা চালিয়ে অস্ত্র লুটের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।
গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন, মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিক খাইরুল আমিন ও মাস্টার আবুল কালাম আজাদ।
উল্লেখ্য গত বছরের ১৩ মে টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসার ব্যারাকে সশস্ত্র হামলা চালায় একদল অজ্ঞাত দুর্বৃত্ত। এ সময় হামলাকারীদের গুলিতে নিহত হন ব্যারাকের দায়িত্বরত আনসার কমান্ডার আলী হোসেন। হামলাকারীরা লুট করে নিয়ে যায় ১১টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ৬৭০ রাউন্ড গুলি।