ইসলামী ব্যাংকে মৌলিক পরিবর্তন হবে না

islami_bank_36157_1483894021.jpg

ইসলামী ব্যাংকে মৌলিক কোনো পরিবর্তন হবে না বলে জানিয়েছেন নতুন চেয়ারম্যান আরাস্তু খান। তার মতে, বর্তমানে যেসব পরিবর্তন হয়েছে তা স্বাভাবিক এবং নিয়মিত পরিবর্তনেরই অংশ।

রোববার ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে জরুরি এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ আহসানুল আলম, নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) আবদুল মতিন, অডিট কমিটির চেয়ারম্যান মো. জিল্লুর রহমান, ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা কমিটির চেয়ারম্যান মো. আবদুল মাবুদ, পরিচালক অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল আলম ও ভারপ্রাপ্ত এমডি মো. মাহবুব-উল-আলমসহ ঊর্ধ্বতন নির্বাহীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরাস্তু খান বলেন, বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মানুষের অকুণ্ঠ বিশ্বাস, আস্থা ও ভালোবাসার কারণে ইসলামী ব্যাংক সফলতা লাভ করেছে। দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার প্রথম সুদমুক্ত এ ব্যাংকের অভাবনীয় সাফল্য প্রমাণ করেছে শরিয়াহভিত্তিক ব্যাংকিং পদ্ধতি প্রচলন করা সম্ভব। দেশে-বিদেশে এ মডেল গত ৩৪ বছর ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ইসলামী ব্যাংকের অনুসরণে অনেক ব্যাংকের জন্ম হয়েছে। অন্য ব্যাংকগুলোও ইসলামী ব্যাংকিংয়ে আগ্রহী।

তিনি বলেন, ব্যাংক পরিচালনার ক্ষেত্রে ইসলামী ব্যাংকিংয়ের মৌলিক নীতিমালা ও ইসলামী শরিয়াহ’র সকল বিধিবিধান কঠোরভাবে পরিপালন করা হবে। এক্ষেত্রে ইসলামী ব্যাংকের প্রতিষ্ঠানিক লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সর্বদা অটুট রাখা হবে।

আরাস্তু খান বলেন, বিষয়টি গ্রাহক, শেয়ারহোল্ডার ও দেশবাসীকে পরিষ্কারভাবে অবগত করতে চাই। ইসলামী ব্যাংকের আমানত গ্রহণ, অর্থায়ন সেবা ও বিনিয়োগসহ সকল কার্যক্রম শরিয়াহ মোতাবেক সুদবিহীন এবং লাভ-ক্ষতির ভিত্তিতেই পরিচালিত হবে। নিরাপদ ও কল্যাণমুখী খাতে এ ব্যাংকের বিনিয়োগ আরও সম্প্রসারণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, এ ব্যাংক শিক্ষা-স্বাস্থ্যসহ আর্তমানবতা ও দুস্থ জনগোষ্ঠীর সেবায় সিএসআর কার্যক্রম পরিচালনা করবে। গ্রাহকদের আমানত সংরক্ষণসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সুযোগ সুবিধার প্রতি আরও বেশী মনযোগ দেয়া হবে। দেশে প্রবাসীদের পাঠানো মোট রেমিটেন্সের ২৭ শতাংশ আসে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে।

নতুন চেয়ারম্যান বলেন, ইসলামী ব্যাংকে মেয়েদের চাকরি বাড়াতে হবে। বড় বড় হিন্দু ব্যবসায়ীরা ইসলামী ব্যাংকের গ্রাহক। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের চাকরির বিষয়টিও নজরে আনতে হবে।

ইসলামী ব্যাংকের বিপুল পরিমাণ অর্থ সরকারের বিভিন্ন মেগা প্রকল্পে খাটানোর বিষয়ে চিন্তাভাবনা চলছে বলেও জানান তিনি।

এ সময় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন চেয়ারম্যান আরাস্তু খান। এছাড়া বেশকিছু প্রশ্নের জবাব দেন ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ আহসানুল আলম ও নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) আবদুল মতিন।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত পর্ষদ সভায় ব্যাংকটিতে বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হয়। পরিবর্তন আনা হয়েছে ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান পদেও।

নতুন পরিচালক হিসেবে পর্ষদ সভায় যোগ দিয়েই ব্যাংকটির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন সরকারের সাবেক সচিব আরাস্তু খান। চেয়ারম্যান পদ ছাড়াও ব্যাংকটির পরিচালক ও ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন মুস্তাফা আনোয়ার। পদত্যাগ করেছেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ আবদুল মান্নানও। বর্তমানে ব্যাংকটিতে ভারপ্রাপ্ত এমডির দায়িত্ব পালন করছেন মো. মাহবুব-উল-আলম।