টেকনাফে বিজিবি’র পৃথক অভিযানে জাদিমুরা থেকে ৬ কোটি টাকার ইয়াবাসহ ৪ পাচারকারী আটক

DSC0045-copy.jpg

টেকনাফ প্রতিনিধি।
টেকনাফে বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ৬ কোটি টাকা মুল্যের ২ লক্ষ পিস ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করেছে। তম্মধ্যে একটি অভিযানে ৪ জন ইয়াবা পাচারকারী আটক এবং ১টি হস্তচালিত নৌকা জব্দ করা হয়েছে। টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরা থেকে এসব ইয়াবা উদ্ধার এবং পাচারকারী আটক করা হয়েছে।
১ জানুয়ারী টেকনাফস্থ ২ বিজিবি অধিনায়কের পক্ষে উপ-পরিচালক মুহাম্মদ আবদুল্লাহিল মামুন প্রেস রিলিজের মাধ্যমে জানান মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান আসার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দমদমিয়া বিওপির নায়েক মোঃ মনিরুল ইসলামের নেতৃত্বে বিশেষ টহল দল ৩১ ডিসেম্বর রাত ৯টায় জাদিমুরা ডিউটি পোস্টের পাশে উৎ পেতে থাকেন। এসময় ৪ জন লোক একটি হস্তচালিত নৌকা নিয়ে টহল দলের কাছাকাছি আসলে টহল দল স্পীডবোট নিয়ে চ্যালেঞ্জ করলে তারা পালিয়ে যেতে চেষ্টা করে। টহল দল তাদেরকে দ্রুত আটক করে নৌকার পাটাতনে ফিটিং অবস্থায় ২০ হাজার পিস ইয়াবা বড়ি পান। যার মুল্য ৬০ লক্ষ টাকা। আটককৃতরা হচ্ছে জাদিমুরা ব্রিটিশপাড়া জাফর আলমের পুত্র মোঃ হাসান (২৬), লাল মিয়ার ২ পুত্র শাহ আলম (৩৫) ও মোঃ আজিজ (২৩), মিয়ানমারের মংডু থানাধীন গউজিবিল গ্রামের মৃত শরীফের পুত্র মোঃ ইলিয়াছ (২৫)। উদ্ধারকৃত ইয়াবাসহ আটককৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট ধারায় মামলা দায়ের করে টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
এদিকে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান আসার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৩১ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় টেকনাফস্থ ২ বিজিবি অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল আবু জার আল জাহিদের নেতৃত্বে বিশেষ টহল দল জাদিমুরা ডিউটি পোস্টের পাশে উৎ পেতে থাকেন। এসময় কয়েকজন লোক একটি হস্তচালিত নৌকা নিয়ে টহল দলের কাছাকাছি আসলে টহল দল স্পীডবোট নিয়ে চ্যালেঞ্জ করলে তারা নৌকা ফেলে পানিতে ঝাঁপ দিয়ে শুন্য রেখা অতিক্রম করে মিয়ানমারের দিকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পরে তল্লাশী করে নৌকার পাটাতনে ফিটিং অবস্থায় ১ লক্ষ ৮০ হাজার পিস ইয়াবা বড়ি পাওয়া যায়। যার মুল্য ৫ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ব্যাটালিয়ান সদর দপ্তরে রাখা হয়েছে। যা যথাসময়ে সংশ্লিষ্টদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।