উখিয়ায় ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানীর মরনোত্তর চেক নিয়ে ভয়ংকর জালিয়াতি

Ovijog_1.jpg

মুহাম্মদ হানিফ আজাদ, নিজস্ব প্রতিনিধি, উখিয়া |
কক্সবাজারের উখিয়ায় ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ এর ভয়ংকর জালিয়াতি। ৪ বছর পেরিয়ে গেলেও মরনোত্তর চেক প্রদান করেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী নিহতের স্ত্রী কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেও কোন সুরাহা পায়নি।

শুধু তাই নয়, ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ কোম্পানী সরল সোজা মানুষকে সুদে আসলে ২ গুন টাকার কথা বলে বীমা খুলিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগে প্রকাশ।

জানা গেছে, উখিয়ার রাজাপালং ইউনিয়নের কুতুপালং পশ্চিম পাড়া গ্রামের ফরিদা আক্তারের স্বামী দিল মোহাম্মদ ১০ বছর মেয়াদী এফডিপিএস পত্র নং- ০৯২২০০৫০৫৫-৪, একটি বীমা খুলেন। কিন্তু গত ০৬ নভেম্বর ২০১৫ইং তারিখে কাজের উদ্দেশ্যে যাওয়ার সময় বালুখালী কাস্টমস এলাকায় সড়ক দূর্ঘটনায় মারা যায়। সে প্রতি মাসে ৩শ টাকা করে ৪৪ কিস্তি বীমা কোম্পানীকে প্রদান করেছেন।

সে মারা যাওয়ার পর তার স্ত্রী ফরিদা আক্তার ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিঃ কক্সবাজার বরাবরে একটি মরনোত্তর চেক পাওয়ার জন্য আবেদন করেন।

আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ১৪ ডিসেম্বর ২০১১ ইং তারিখে ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিঃ উখিয়ার সাংগঠনিক অফিসের অধীনে একটি বীমা পলিসি গ্রহণ করে যার নং- ৮৩/৭৫/সি-২৪/২০১১ এবং পলিসি নং- ০৯২২০০৫০৫৫-৪, বীমা অংক ৩৬,০০০/= (ছয়ত্রিশ হাজার) টাকা মাত্র।

বীমাটি গ্রহণ করার পর ৪৪ কিস্তি মাসিক প্রিমিয়াম জমা করে সে মারা যায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ফারইষ্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ উখিয়া শাখার ইনচার্জ রশিদুল আলম বলেন, এ ব্যাপারে তার জানা নেই।

নিহত দিল মোহাম্মদের স্ত্রী ফরিদা আক্তার বলেন, উখিয়া অফিসে বার বার ধর্না দিয়েও তার স্বামীর মরনোত্তর চেকের টাকা না পেয়ে দুর্ভিসহ জীবন যাপন করছেন।