বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী আগামীকাল কুতুপালং আসছেন

15151028_942082012603328_701314561_n.jpg

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া :
বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব উখিয়ার কুতুপালংস্থ রোহিঙ্গা শরনার্থী শিবির পরিদর্শনে আসছেন আগামীকাল মঙ্গলবার। মন্ত্রীদ্বয় সকাল ১১টার দিকে কুতুপালং শরনার্থী শিবিরে নিবন্ধিত, অনিবন্ধিত ও সম্প্রতি অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের সাথে কথা বলে তাদের সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে সমস্যাদি জানতে চাইবেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী ও ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেতনো এলপি মারসুদি মঙ্গলবার সকাল ১১টায় উখিয়া কুতুপালং শরনার্থী শিবিরে পরিদর্শনে আসার কথা রয়েছে। তাদের সাথে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মোঃ শহিদুল হক থাকবেন বলে জানা গেছে।

গত ৯অক্টোবর বাংলাদেশ সীমান্তের ওপারে মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপির) দুইটি বিওপি ও কাউয়ার বিল সদর ব্যাটলিয়ানে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ৯জন সরকারি নিরাপত্তা কর্মী, ২জন আক্রমণকারী নিহত হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় দীর্ঘ সময় ধরে চলা সামরিক অভিযানের মাধ্যমে রোহিঙ্গা নৃ-গোষ্টি নির্মূল করা হচ্ছে, ঘটানো হচ্ছে মানবতা বিরোধী অপরাধ। ১৭টি রোহিঙ্গা অধ্যুষিত পাড়া গ্রামে পরিচালিত অভিযানে প্রায় ৪০হাজারের মত রোহিঙ্গা গৃহহীন, দেড় হাজারের ঘরবাড়ি, স্থাপনা অগ্নি সংযোগ করে ধ্বংস করা হয়েছে, শতাধিক নিরহ রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়েছে, অসংখ্য কিশোরী-যুবতীদের ধর্ষন করা, আইন বর্হিভূত ভাবে নির্বিচারে গণগ্রেপ্তার চালানো, মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে কিছু কিছু আটককৃতদের ছেড়ে দেওয়া সহ মানবতা বিরোধী অপরাধের মত গুরুতর অভিযোগ উঠেছে দেশ-বিদেশী সংবাদ গণমাধ্যমে।
এসবের প্রেক্ষিতে গতকালও এ্যামনেষ্টি ইন্টারন্যাশনাল মিয়ানমারের রাখাইনে সংগঠিত সেনা নির্যাতন ও কোন ত্রান সহযোগীতা ও কর্মীদের অনুমতি না দেওয়া, মানবাধিকারের চরম লংঘন বলে অবহিত করে কঠোর সমালোচনা করেছেন।

বাংলাদেশে অবস্থান নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা পর্যবেক্ষণের জন্য ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী গতকাল সোমবার মিয়ানমারে আশিয়ান জোটভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের রোহিঙ্গা সংক্রান্ত বিষয়ে মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সুচির আমন্ত্রণে বৈঠক শেষে আজ বাংলাদেশে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানা গেছে।

কুতুপালং ক্যাম্প ইনচার্জ আরমান শাকিল জানান, পররাষ্ট্রমন্ত্রীদ্বয় আসার কথা তিনি ইউএনএইচসিআরের কাছ থেকে শুনেছেন। তবে তিনি এখনো প্রোগ্রাম পাননি বলে জানিয়েছেন।