ফলোআপ : চিহ্নিত ইয়াবা সেবনকারী আব্দুল্লার হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় এক জেলে পরিবার

fff.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি,টেকনাফ।
চাঁদা না পেয়ে এক ইয়াবা পাচারকারী ও চিহ্নিত ইয়াবা সেবনকারী আব্দুল্লাহ এর হুমকি এখনো অব্যহত । ইয়াবা সেবনকারী আব্দুল্লার নেতৃত্বে গত ১২ ডিসেম্বর দুপুর ২ টায় টেকনাফের হোয়াইক্যং মনিরঘোনা গ্রামে জেলে আব্দুরহমানকে হত্যা করা চেষ্টা করেন।হোয়াইক্যং বালুখালী গ্রামের নুরুল ইসলামের পুত্র আব্দুল্লাহ(৩৫) সেই এলাকাতে একটি প্রভাবশালী মহলের চত্রছায়ায় এসব অপর্কমর করে যাচ্ছে বলে এলাকাবাসী জানান। চুরির আঘাতে আহত জেলে আব্দুরহমান ছোট বাচ্চা নিয়ে বাজার করতে যাওয়ার সময় আগে থেকে উৎপেতে থাকা ইয়াবা পাচারকারী আব্দুল্লাহ (৩৫) এর নেতৃত্ব কয়কজন সস্ত্রর যুবক লাটি ,চুরি নিয়ে মনিরঘোনা নামক স্থানে রাস্থার পাশে দাড়িয়ে থাকে,জেলে আব্দুরহমান আসলে কয়েকজন মিলে প্রথমে থাকে মারধর করে মাটিতে পেলে দেয় এবং আব্দুল্লাহ চুরি দিয়ে আঘাত করতে থাকে একপর্যায় তার সুরচিৎকারে এলাকার লোকজন আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় উক্ত আহত ব্যাক্তি কে এলাকার লোকজন ঘটনাস্থতল থেকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়।
জেলে আব্দুরহমান (২৮) স্থানীয় মনিরঘোনা গ্রামের আহমদের হোসনের পুত্র।জেলে আব্দুরহমানের কাছ থেকে দীর্ঘদিন যাবত আব্দুল্লাহ মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে আসছিল। টাকা না পেলে থাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দমকি দিত প্রতিনিয়ত।সেই হত্যাকান্ড ঘটনার উদ্দ্যেশে তার উপর আক্রমন করা হয়।সেই স্থানীদের সহতায় কোনরকম প্রানে বেঁচে যায়। আব্দুল্লাহ এলাকাতে চুরি,সন্ত্রাসী কার্যকালাপ ইয়াবা সেবন ও পাচারে কাজ করে আসছে।তার এসব কারাপ কার্যকালাপের কারণে এলাকার যুব সমাজ নষ্ট হচ্ছে তার কারণে এলাকার অনেক নিরহ শান্তি প্রিয় জনতা নিরাপত্তা হীনতায় দিন পার করতেছে সমাজে শান্তি শৃংখলা নষ্ট হচ্ছে।
সেই অবৈধ বেআইনি অস্ত্র নিয়ে এলাকাতে নিয়মিত টহল দেয় বলে জানা গেছে। সব সময় নিরহ মানুষদের কাছ থেকে চাদাঁ দাবি ও ঝগড়া বিবাধ করে যাচ্ছে। একটি প্রভাবশালী মহল থাকে এসব অবৈধ কাজের সহযোগিতা করছে বলে জানা যায়। সেই এখনো রাস্থায় হাকাবাকা করে যাচ্ছে,জেলে আব্দুরহমান সহ তার পরিবারে লোকজনদেরকে বিভিন্ন রকমের হুমকি দমকি অব্যহত রেখেছে যাতে এবিষয় কোন খানে অভিযোগ না দেওয়ার জন্য। এবং জেলে আব্দুরহমানের পরিবার বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।
আহত জেলে আব্দুরহমান বলেন, আমার কাছ থেকে আব্দুল্লাহ বিভিন্ন সময় টাকা দাবি করে আসত আমি থাকে তার দাবিকৃত টাকা দিতে না পারাই আমাকে হত্যার উদ্দ্যেশে মারধর,চুরি দিয়ে আঘাত করে যদি স্থানীয় লোকজন না হত তাহলে আমাকে মেরে পেলত আমি এর ন্যায় বিচার চায়। এলাকার স্থানীরা জানান আব্দুল্লাহ একজন ইয়াবা পাচারকারী ও চিহ্নিত সেবনকারী সেই এলাকাতে একের পর এক অপরাধ করে যাচ্ছে তাকে আইনের আওয়াতায় এনে শাস্তি দেওয়ার আহবান জানান। ঘটনাটি ঘটানোর পর আব্দুল্লাহ এখনো প্রকাশ্যে এবং জেলে আব্দুরহমানের পরিবারে লোকজন তার হুমকির মধ্যে রয়েছে ।