হোয়াইক্যংয়ে রোহিঙ্গা ইয়াবা গডফাদারের কর্মকান্ডে এলাকাবাসীর মাঝে চরম হতাশা

ovijog-tt_20.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি,টেকনাফ।
টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ের ঘিলাতলী গ্রামের এক রোহিঙ্গা ইয়াবা গডফাদারের কর্মকান্ডে এলাকার সাধারণ জনসাধারণ অতিষ্ট বলে খবর পাওয়া গেছে। অভিযোগটি উঠেছে ঘিলাতলী গ্রামের আতর আলীর পুত্র আবুল কালাম প্রকাশ বাদশার বিরুদ্ধে । সে বিগত ৮/৯ বছর পুর্বে র্বামা থেকে বাংলাদেশে আসে। তার পরিবার পরিজন সহকারে বার্মা বুচিদং এলাকার বাসিন্দা ছিল।আসার পর সেই প্রথমে বিভিন্ন স্থানে মানুষের কাজকর্ম করত। পরে বার্মার ইয়াবা গডফাদারের সাথে তার সুসম্পর্ক তৈরি হয়। এর ধারাবাহিকতায় সে ইয়াবা ব্যবসা করে এখন সেই গাড়িবাড়ি সহ টাকা পয়সার মালিক বনে যায়। এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা তার মাধ্যমে আদান প্রদান হয় এবং এজেন্ট হিসাবে কাজ করে বলে জানা যায়।
পরে তারা বিভিন্ন কৌশলে বাংলাদেশের নাগরিক হয়,আবুল কালাম একটি নারী নির্যাতন ও হত্যা মামলার পলাতক আসামী বলে একটি সুত্রে তথ্যটি পাওয়া যায়।বদরখালী ইউনিয়নের সুফিয়া বেগম নামে এক মহিলার সাথে তার বিবাহ হয় সেই তার নিজ স্ত্রী সুফিয়া কে প্রায় সময় নিযার্তন করত এক পর্যায় আবুল কালাম মারধর করে সুফিয়া বেগম কে হত্যা করে তবে আবুল কালাম তার স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি করলেও সুফিয়া বেগমের বাবা বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে নারী নিযার্তন ও হত্যা মামলা করেন সুফিয়া বেগমের সংসারে তিন সন্তান ছিল। সুফিয়া বেগম হত্যার মুল কারণ ছিল আবুল কালাম এর প্রথম স্ত্রী সুফিয়া বেগম তার সংসারে থাকা অবস্থায় খুটাখালী এলাকার একটি মেয়ের সাথে সম্পর্ক ছিল সেই সম্পর্কর কারণ নিয়ে তাদের মাঝে প্রায় সময় ঝগড়া বিবাদ হত। তারই ধারাবাহিকতায় হত্যা কান্ডটি ঘটে বলে এলাকাবাসীর ধারণা ছিল। পরে খুটাখালী সেই মেয়েটি কে বিবাহ করে । তার সাথে ও র্দীঘদিন সংসার করার পর থাকে হত্যা ও নির্যাতন করতে না পারলেও বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে থাকেও তালাক দেয়। সে মুলত একজন নারী লোভি ব্যক্তি। আবুল কালাম একবার পুলিশের হাতে ইয়াবা সহ আটক হয়ছিল পরে টাকার বিনিময় ছাড়া পাই বলে একটি সূত্রে জানা যায়। এরপর আবুল কালাম স্থানীয় ডেইল পাড়ার মোং হোসনের মেয়ে কে বিয়ে করেন, বর্তমানে তার সাথে সংসার করে যাচ্ছে। আবুল কালাম ইয়াবার টাকার গরমে এলাকায় বিভিন্ন অপর্কমের চালাচ্ছে। স্থানীয়দের মতে উক্ত আবুল কালাম র্বামার হলেও এখন সেই বাংলাদেশের বর্তমান বাসিন্দা তার অনেক কর্মকান্ড আইন বিরোধী এবং নারী কেলেংকারীতে জড়িত।