বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় জেলা পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শফিক মিয়াকে হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পুষ্পমাল্য দিয়ে বরণ

.jpg

বিশেষ প্রতিনিধি, টেকনাফ |
টেকনাফ উপজেলা পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, তিনবারের নির্বাচিত সাবরাং ইউপির সফল চেয়ারম্যান ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ শফিক মিয়া সদ্য ঘোষিত জেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৫ নং ওয়ার্ড থেকে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে প্রাণঢালা অভিনন্দন ও ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে বরণ করা হয়। ০৬ ডিসেম্বর দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটের দিকে সদ্য নির্বাচিত জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব শফিক মিয়া কক্সবাজার থেকে আসার খবর পেয়ে হ্নীলা বাস ষ্টেশনে হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে তাকে বরণ করার জন্য অসংখ্য নেতা-কর্মী ফুলের মাল্যসহ অপেক্ষা করে। শফিক মিয়া হ্নীলা বাস ষ্টেশনের সিকদার প্লাজার সামনে পৌছলে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি, সম্পাদকের নেতৃত্বে নেতা-কর্মীরা তাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি, জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা,হ্নীলা ইউপির দু’বারের সফল চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এইচ. কে আনোয়ার, হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিকদার, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য রশিদ আহমদ, টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নজরুল ইসলাম খোকন, উপজেলা ওলামালীগ নেতা মাওলানা ক্বারী ফরিদুল আলম, হ্নীলা ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান- আবুল হোছন, ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মৌ: শাকের আহমদ কোম্পানী, ৭নং ওয়ার্ড ইউপি মেম্বার জামাল হোছাইন, আওয়ামীলীগ নেতা ফিরোজ আহমদ চৌধুরী, দেলোয়ারুল ইসলাম, জাকের হোছাইন চৌধুরী, যুবলীগ নেতা- মুফিজুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, হ্নীলা ইউপি সচিব হাকিম উদ্দিন পাহাড়ীসহ আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠনের অসংখ্য নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ জনতা উপস্থিত ছিলেন। ফুল দিয়ে বরণের জবাবে জেলা পরিষদের সদ্য বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত সদস্য আলহাজ্ব শফিক মিয়া বলেন- আমি আপনাদের পাশে আছি এবং থাকব। আজীবন আপনাদের ভালবাসা নিয়ে আপনাদের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের সাথে রেখে সামগ্রিকভাবে উন্নয়নের কাজ করে যাব ইনশাআল্লাহ।