নাইক্ষ্যংছড়িতে বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় অনুপস্থিত কর্মকর্তাদের নিয়ে ক্ষোভ

432.jpg

শামীম ইকবাল চৌধুরী, নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবান)থেকেঃঃ
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্টিত হয়েছে। রবিবার (৪ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ হল রুমে প্রস্তুতি সভায় বিজয় দিবসে নানা কর্মসূচির পাশাপাশি উপজেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সঠিক মাপের নতুন পতাকা উত্তোলন, পুষ্পস্তাবক অর্পণ, খেলাধুলা, শহিদদের স্মরণে আলোচনা সভা, মুক্তিযোদ্ধা সংবর্ধাসহ গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এস,এম সরওয়ার কামাল সভায় বলেন- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঠিক নেতৃত্ব থাকার কারনে দেশ দ্রুততম সময়ে স্বাধীন বাংলাদেশ হয়েছে। যার সুফল আমরা এখন ভোগ করছি। বঙ্গবন্ধুর জম্ম না হলে বাংলাদেশ স্বাধীন হতো না। মহান বিজয়ে নতুন প্রজন্মকে সঠিক চেতনায় উৎজীবিত করতে হবে। আর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে যারা বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত হননি তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অবহিত করার পাশাপাশি কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান। এসময় উপস্থিত অন্যান্য সরকারী কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবর্গ, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের ব্যাক্তিবর্গ নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার এ সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানান।
সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ আহ্বায়ক ও বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ক্যউচিং চাক, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: কামাল উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হামিদা চৌধুরী, থানা অফিসার ইনচার্জ এ এইচ এম তৌহিদ কবির, ছালেহ আহম্দ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক ছালেহ উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: মনিরুজ্জামান, প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: মো: আতিয়ার রহমান, স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ডা: মংহ্লা প্রু, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আবু আহমদ, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের সমন্বিত সমাজ উন্নয়ন প্রকল্পের ব্যবস্থাপক এ কে এম রেজাউল হক, বিআরডিবি কর্মকর্তা মো: তাজ নাওয়াজউল কবির, সমবায় কর্মকর্তা মো: জাহাঙ্গীর আলম, হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা সুগত সেবক বড়–য়া, উদ্যান তত্ববিদ মো: এমরান কবির, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সমন্বয়কারী মুহম্মদ মহিউদ্দিন, উপ-সহাকারী প্রকৌশলী মো: রেজাউল করিম, এমপি প্রতিনিধি আলহাজ¦ খায়রুল বাশার, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রাজা মিয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগ সদস্য সচিব মো: ইমরান মেম্বার, আওয়ামীলীগ নেতা তাহের কোম্পানী, তসলিম ইকবাল চৌধুরী, ডা: মো: ইসমাইল, বীর মুক্তিযোদ্ধা মংশৈ ফ্রু চৌধুরী, উপজেলা দুর্ণীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি শাহ সিরাজুর রহমান সজল, বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি নুর আহমদ কোম্পানী, বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মো: আলম, ঘুমধুম ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ, সোনাইছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান বাহান মার্মা, দোছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মো: হাবিবুল্লাহ, সদর ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক নাসরিন আক্তার, প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক ওসমান গণি, বিজিবি স্কুল প্রধান শিক্ষক নুরুল বাশার, আদর্শগ্রাম স্কুল প্রধান শিক্ষক হেলাল উদ্দিন, প্রেসক্লাব সভাপতি শামীম ইকবাল চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আবুল বশর নয়ন, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা, কামরুল হাসান, যুব উন্নয়ন প্রতিনিধি মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, খাদ্য অফিস প্রতিনিধি সুবল চন্দ্র বড়–য়া, পরিবার পরিকল্পনা প্রতিনিধি আবু তাহের, কলেজ প্রতিনিধি মো: আবুল হোসেন, মদিনাতুল উলুম মাদরাসা প্রতিনিধি মুহাম্মদ ছৈয়দুল বাশার, উপজেলা আনসার অফিস প্রতিনিধি তাহেরা বেগম, মহিলা আওয়ামীলীগ সভানেত্রী জুহুরা বেগম, সাধারণ সম্পাদক ওজিফা খাতুন রুবি, ডিএসবি’র এএসআই মৃদুল ইসলাম, শৈলশক্তি শিশু বাগ কেজি স্কুল প্রধান শিক্ষক জাকের হোসেন, ওবাইদুল হক, ফখরুল ইসলাম কালু প্রমুখ।
সভায় অন্যান্য বক্তারা আগামী ১৬ ডিসেম্ব মহান বিজয় দিবস সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ ভাবে যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে পালনের জন্য নিজ নিজ অবস্থান থেকে সহযোগিতার আশ^াস দেন।
এদিকে বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভা শেষে আর্ন্তজাতিক অভিবাসী দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্টিত হয়।
উল্লেখ্য, বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় যথা নিয়মে নোটিশ প্রদান করা হলেও সরকারী বেশ কয়েকটি দপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন না। আবার অনেকে নিজেরা না এসে অফিস কর্মচারীদের প্রতিনিধি হিসেবে পাঠানোর কারণে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের পাশাপাশি খোদ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার। যদিওবা অন্যান্য বারের তুলনায় এবারের বিজয় দিবসের প্রস্তুতি সভায় সন্তোষজনক উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।