টেকনাফ স্থলবন্দরে নভেম্বর মাসে প্রায় ৯ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়

Bondor-pic_jahaj.jpg

সাইফুদ্দীন মোহাম্মদ মামুন, টেকনাফ |
টেকনাফ স্থলবন্দরে গত মাসে প্রায় ৯ কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে। মাসিক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২ কোটি ৯১ লাখ টাকার বেশী রাজস্ব আদায় হয় বলে জানায় বন্দর সংশ্লিষ্টরা। শুল্ক বিভাগ সূত্রে জানায়, ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের নভেম্বর মাসে ১৮৩ টি বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে ৮ কোটি ৯৭ লাখ ৫৫ হাজার ১৩০ টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে। ফলে মিয়ানমার থেকে ২৫ কোটি ৫ লাখ ৮৬ হাজার ৫৫০ টাকার পন্য আমদানি করা হয়। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্তৃক এ মাসে ৬ কোটি ৬ লাখ টাকার মাসিক লক্ষ্যমাত্রা নিধারণ করা হয়। এ লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২ কোটি ৯১ লাখ ৫৫ হাজার ১৩০ টাকার রাজস্ব বেশী আদায় করতে সক্ষম হয়েছে। অপরদিকে ৪১ টি বিল অব এক্সপোর্টের মাধ্যমে মিয়ানমারে ১ কোটি ৪৩ লাখ ৪৮ হাজার ৬৭৪ টাকার মালামাল রপ্তানি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন। এছাড়া এ মাসে ক্যাডল করিডোর দিয়ে আসা ১৭৫৩টি গরু, ১০৩টি মহিষ আমদানী করে ৯ লাখ ২৮ হাজার টাকা রাজস্ব আদায় করা হয় বলে জানায়।
এদিকে গত ৯ অক্টোবর মিয়ানমারে বিজিপি ক্যাম্পে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় সেদেশের সেনা বাহিনী মংডু জেলার ২২টি গ্রামে রোহিঙ্গাদের উপর অত্যাচার-নির্যাতন, হত্যা ও তান্ডব চালিয়ে যাচেছ। এর ফলে হাজার হাজার রোহিঙ্গারা প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পাড়ি জমাচেছ। বর্তমানে মংডুর ২২টি গ্রামে জন মানব শূন্য হয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে। এদিকে ঘটনার পর থেকে মিয়ানমারে বৈধ যোগাযোগের মাধ্যম বর্ডার পাস ও ট্রানজিট বন্ধ হয়ে যায়। ফলে দ্বীর্ঘদিন ধরে মিয়ানমারের সাথে বৈধ যোগাযোগ বন্ধ থাকে। তবে প্রথম দিকে সীমান্ত বানিজ্যের পন্যবাহী ট্রলার কম আসলেও পরবর্তীতে আগের অবস্থায় ফিরে আসে। যার ফলে দুদেশের সীমান্ত বানিজ্যে থেমন কোন প্রভাব বিস্তার করেনি। সীমান্ত বানিজ্য ব্যবসা স্বাভাবিক থাকায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে রাজস্ব আদায় বেশী হয়েছে। এদিকে মিয়ানমার থেকে কোটি কোটি টাকার পন্য আমদানী হলেও মংডু এলাকায় আতংকের কারনে বাংলাদেশ থেকে পন্য রপ্তানী কম হয়েছে বলে জানায় সংশ্লিষ্টরা। টেকনাফ স্থলবন্দর শুল্ক কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান জানান, গত নভেম্বর মাসে নানা প্রতিক’লতার মাঝেও মিয়ানমার থেকে পণ্য আমদানী হওয়ায় মাসিক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী রাজস্ব আদায় করা সম্ভব হয়েছে। তাছাড়া দেশীয় পন্য রপ্তানীও অনেকটা স্বাভাবিক রয়েছে। সীমান্ত বানিজ্য ব্যবসাকে গতিশীল করতে ব্যবসায়ীদের আমদানী-রপ্তানী বাড়াতে সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা করেছেন ওই কর্মকর্তা।