পেকুয়ায় শিলখালী ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতার চাঁদাবাজি মামলা

mamla-logo.jpg

পেকুয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি |
পেকুয়ায় শিলখালী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি’র) চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি নুরুল হোছাইনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা রুজু করেছেন ছাত্রলীগ পেকুয়া সদর ইউনিয়ন শাখার সাবেক আহবায়ক নাছির উদ্দিন বাদশাহ। শিলখালী ইউপির চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে তার কাছ থেকে দু’লক্ষ টাকা চাঁদাদাবি করার অভিযোগে নাছির উদ্দিন বাদশাহ চকরিয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি অভিযোগ দেন। বিজ্ঞ হাকিম সেটি আমলে নিয়ে নিয়মিত মামলা হিসেবে রুজু করতে ওসি পেকুয়াকে নির্দেশ দেন। গত ২৭নভেম্বর পেকুয়া থানায় সেটি নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড হয়েছে। যার নং-১৫/১৬। মামলায় শিলখালী ইউপি’র চেয়ারম্যান নুরুল হোছাইনকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। মামলার অপর আসামিরা হলেন একই ইউপির সদস্য বিএনপি নেতা আবু তাহের, চেয়ারম্যানের ভাতিজা হিসাবে পরিচিত হাজি¦রঘোনা এলাকার জামাল হোসেনের ছেলে মুফিজুর রহমান, একই এলাকার মোজাফ্ফর আহমদের ছেলে খোরশেদ আলম বোরহান, হাজিরঘোনা এলাকার চেয়ারম্যান পাড়ালিয়া কায়সার উদ্দিন, পেটান মাতবরপাড়া এলাকার নুরুল আমিনের ছেলে মো.জাকরিয়া। এছাড়া মামলায় আরো ১০-১২জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে। পেকুয়া থানার অফিসার ইনর্চাজ জিয়া মো.মোস্তাফিজ ভুঁইয়া মামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। মামলা সুত্রে জানা গেছে ২০১৪সালে সামাজিক বনায়ন সৃজনের জন্য বনবিভাগ উপকারভোগি নিয়োগ করেন। ছাত্রলীগ নেতা নাছির উদ্দিন বাদশাহ দক্ষিন চট্টগ্রাম বনবিভাগের পহরচাঁদা বনবিটের আওতায় হারবাং রির্জাভ ভুমি ১৭নং সিটে উপকারভোগি হিসেবে সংরক্ষিত বনাঞ্চালে বাগান সৃজন করে। বাগান পরিচার্যে ছাত্রলীগ নেতা তার বরাদ্ধকৃত জায়গায় পিলার ও কাটাতারের বেড়া দিয়ে সিমানা নির্ধারন করেন। বর্তমানে গাছগুলি বিক্রি উপযুক্ত হয়েছে। জানা গেছে, শিলখালী ইউপির চেয়ারম্যান নুরুল হোছাইনের নেতৃত্বে আসামিরা বাগান থেকে ছাত্রলীগ নেতাকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা করে। এমনকি সম্প্রতি ওইচক্র তার কাছ থেকে ২লক্ষ টাকা চাঁদাদাবি করে। এনিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে ¯œায়ু বিরোধ দেখা দেয়। এদিকে দাবিকৃত চাঁদা না দেয়ায় ওই চক্র ছাত্রলীগ নেতার বাগান থেকে পিলার ও কাটাতারের বেড়া অপসারন করে প্রায় ৭০-৮০হাজার টাকার গাছ কর্তন করে নিয়ে যায়। এর প্রতিবাদ করলে আসামিরা বাদিকে মারধর করে আহত করে। এর সুত্র ধরে ছাত্রলীগ নেতা বাদশাহ বাদি হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে গত ২২নভেম্বর একটি পিটিশন দায়ের করেন। এ ব্যাপারে মামলার বাদি নাছির উদ্দিন বাদশাহ জানায় চেয়ারম্যান নুরুল হোছাইন একজন চাঁদাবাজ। তার নেতৃত্বে শিলখালী পাহাড়ি এলাকায় গড়ে উঠেছে চাঁদাবাজ চক্রের সিন্ডিকেট। সরকার আমাদেরকে উপকারভোগি মনোনীত করেছেন। বাগানে লাখ লাখ টাকা পুঁজি বিনিয়োগ করেছি। কঠোর পরিশ্রম করে বাগান গড়ে তুলেছি। প্রায় দু’লক্ষ টাকা খরচ করে ঘিরা বেড়া দিয়েছি। সুফল পাওয়ার সময় ওই চেয়ারম্যান বাগানের প্রতি কুদৃষ্টি দিয়েছে। ২০১৪সালে ৫জানুয়ারীতে সরকার উৎখাতের জন্য ব্যাপক সহিংসতা হয়েছে শিলখালী ও পেকুয়া সদরের পুর্ব অংশে। এর নেতৃত্ব দিয়েছে নুরুল হোছাইন চেয়ারম্যান। জামাত-বিএনপির ২৯টি মামলা পরিচালনা করছেন তিনি। শিলখালী ইউপির চেয়ারম্যান নুরুল হোছাইন জানায় হারবাংয়ে নাছির উদ্দিন বাদশাহ কিছু জায়গা পেয়েছে সেটি জেনেছি। তবে ওই জায়গায় আরেকটি পক্ষ তাদের দাবি করছে। এখানে আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই। সে মনে করছে আমাকে আসামি করলে মামলায় সুবিধা পাবে। এ সুত্রে মামলটি হয়েছে।