টেকনাফে সবজীর দাম আগুন : ভোক্তাদের নাভিশ্বাস

Teknaf-pic-1......23.11.2016.jpg

মোঃ আশেকউল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ প্রতিনিধি ::
এখন শীতকালীন সবজি উৎপাদনের ভরা মওসূম। সবজি বাজারে আসতে শুরু করেছে। টেকনাফ বাজারের সিংভাগ সবজী বাহির থেকে আসে। স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত সবজী এখনো বাজারে আসেনী। জনসংখ্যার তুলনায় শাক সবজীর চাহিদা অপ্রতুল। চাষীরা সবজীর চেয়ে পান ব্ররজ চাষে বেশী আগ্রহী। তা ছাড়া জমির মালিক প্রায় বিত্তশালী এবং জমির পরিমান ও কম। প্রায় জমিতে লবণের চাষ হয়। বিশেষ করে টেকনাফ সদর, সাবরাং ও বাহারছড়া এলাকায় সবজীর চাষ হলেও অন্যান্য এলাকায় তেমন সবজী চাষ হয়না। অনেকেই ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত এবং সবজী চাষে তারা তেমন আগ্রহী নয়। এছাড়া রোহিংগা, ইয়াবা ব্যবসায়ী এবং সবজী আড়তদারদের কারণে টেকনাফ বাজারে সবজীর বাজার এখন আগুন। টেকনাফ পৌর শহর ষ্টেশান শবজী বাজার পরিদর্শন করে জানা যায়, বেগুন ৪০ টাকা, ফুলকপি ৬০ টাকা, করলা ৫০ টাকা, টমেটো ৮০ টাকা, কইড়া ৪০ টাকা, বড় আলু ৬০ টাকা, ছোট আলু ৩০ টাকা কাঁচা মরিচ ৮০ টাকা, গাজর ৮০ টাকা, শিম ৭০, পেপে ৩০, বেন্ডি ৬০, মিষ্টি কোমড়া ৪০, পিঁয়াজ ৩০, জিংগা ৪০, লেবু ৮, আদা ৮০, রসুন ১৮০, মুলা ৪০, বাঁধা কপি ৫০। সবজী ব্যবসায়ী আবদুস সমদ জানান, এখনো স্থানীয় ভাবে উৎপাদিত সবজী বাজারে আসেনী। প্রায় সবজী বাহির থেকে আসে। আমরা স্থানীয় আড়তদারদের কাছ থেকে প্রায় সবজী ক্রয় করে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি করি। স্থানীয় একটি পত্রিকায় সবজী সংক্রান্ত একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। এতে উল্লেখ করা হয় টেকনাফ বাজারের ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে সবজীর দাম বৃদ্ধি করে দিয়েছে। এ তথ্য সঠিক নয় বলে ব্যবসায়ীরা জানায়। তবে প্রায় ভোক্তারা এ প্রতিবেদককে অভিযোগ করেন, পাশ্ববর্তী অন্যান্য বাজারের তুলনায় টেকনাফ বাজারে শাক, সবজী ও মাছের দাম অনেক বেশী। যাহা ইয়াবা ব্যবসায়ী ছাড়া সাধারণ ভোক্তাদের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে। প্রশাসনের বাজার মনিটরিং কার্যক্রম জিমিয়ে পড়ার কারণে ব্যবসায়ীরা এ সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে।