ফেসবুকের ভুলে মৃত হলেন জাকারবার্গসহ অনেকে!

facebook.jpg

শুক্রবার বিশ্বের নানা প্রান্তের মানুষ ফেসবুকে ঢুকে খানিকটা সময়ের জন্য হলেও বড়সড় একটা ধাক্কা খেয়েছিলেন তাতে কোনো সন্দেহ নেই। কারণ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি তখন ভারাক্রান্ত, ফেসবুক স্রষ্টা জাকারবার্গসহ আরও অনেক মানুষের হঠাৎ মৃত্যু নিয়ে। তবে সেই ঘোর কাটাতে বেশিক্ষণ সময় নেয়নি ফেসবুক, কেননা এসবই হয়েছিল ফেসবুকের কারিগরি ত্র“টির জন্য। বিবিসির খবরে জানানো হয়, শুক্রবার হঠাৎ করেই ফেসবুকের অনেক ব্যবহারকারীর প্রোফাইল, মৃত ব্যবহারকারীর প্রোফাইলে রূপ নেয়। ওইসব প্রোফাইলের ওপর রিমেমবারিং বা স্মরণীয় বার্তা ঝুলতে দেখা যায়। ওই অভাগাদের মধ্যে ছিলেন ফেসবুক সিইও জাকারবার্গও। তার প্রোফাইলের স্মরণীয় বার্তায় বলা হয়, মার্ককে যারা ভালবাসেন তারা তার কোনোকিছু শেয়ার করে তাকে স্মরণ ও তার জীবনকে উদ্যাপন করতে পারবেন বলে আমরা আশা করছি। এদিকে অনেক ব্যবহারকারী তাদের প্রোফাইলে স্মরণীয় বার্তা ঝুলতে দেখে নিজেরাই পোস্ট দেন যে, তারা আসলে মারা যাননি, তারা এখনও বেঁচে আছেন। কেটি রজার নামের এক ব্যবহারকারী নিউইয়র্ক টাইমসকে অভিযোগ জানিয়ে বলেন, ফেসবুক কেন আমাকে মৃত বলছে? প্রথমত. বিষয়টি নিয়ে আমি খুবই রুষ্ট, দ্বিতীয়ত. আমি মারা যাইনি এখনও, বেঁচে আছি। বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকের একজন মুখপাত্র গণমাধ্যমকে বলেন, এটা ছিল ভয়ানক একটা ত্র“টি। তবে এখন আমরা এটা ঠিক করে দিয়েছি। আমরা খুবই দুঃখিত এমনটি হওয়ার জন্য। প্রসঙ্গত, মেমোরিয়াল ফিচারটি ফেসবুক সর্বপ্রথম ২০১৫ সালে নিয়ে আসে। এই ফিচার ব্যবহার করে ব্যবহারকারীরা মৃত্যুর পর তার পেজ কিংবা প্রোফাইলকে স্মরণীয় করে রাখার নির্দেশ দিয়ে যেতে পারেন। অথবা কেউ চাইলে তার প্রোফাইলকে ডিলিট করার কথাও বলতে পারেন।