সীমান্তে বেপরোয়া মিয়ানমার বিজিপি : ধরে নিয়ে গেছে টেকনাফের আরও ৩ জেলেকে

naf-nodi_tt-pic.jpg

নুরুল করিম রাসেল, টেকনাফ টুডে ডটকম |

সীমান্তে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে মিয়ানমার সীমান্ত রক্ষীবাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)। শুক্রবার রাতে নাফ নদী থেকে ১টি ফিশিং ট্রলার ও জালসহ আরও ৩ জেলেকে ধরে নিয়ে যায় তারা।

এ নিয়ে গত ১০ দিনে নাফ নদী ও বঙ্গোপসাগর থেকে ১১ জেলেকে ধরে নিয়ে গেল বিজিপি।

জানা যায়, শুক্রবার রাত ৮টার দিকে টেকনাফের নাজির পাড়া বরাবর নাফ নদী থেকে মাছ শিকাররত অবস্থায় ৩ জেলেকে ট্রলার ও জালসহ ধরে নিয়ে যায় বিজিপি।

ওই তিন জেলে হলেন- টেকনাফ পৌরসভার উত্তর জালিয়াপাড়ার আব্দুল মালেকের ছেলে আবদুর রহমান (৩২), চৌধুরী পাড়া এলাকার সৈয়দ হোসেনের ছেলে মো. ইউনুচ (২৫) ও আব্দুল আমিনের ছেলে মো. খালেক (১৮)।

বিজিবি টেকনাফ বিওপির কোম্পানি কমান্ডার আব্দুল কাদের জানান, জেলে আব্দুর রহমানের বাবা মালেক শনিবার বিকালে বিওপিতে এসে জেলেদের ধরে নিয়ে যাওয়ার খবরটি জানান। এ ব্যাপারে ব্যাটেলিয়ন সদর দফতরে যোগাযোগ করা হয়েছে।

এর আগে গত ২ নভেম্বর সন্ধায় নাফ নদী থেকে নৌকাসহ ৩ জেলে ও ৯ নভেম্বর বঙ্গোপসাগরের সেন্টমার্টিন থেকে আরও ৫ জেলেকে ট্রলারসহ ধরে নিয়ে যায়। এখনও বিজিপি তাদের ফিরিয়ে দেয়নি।

এ ব্যাপারে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) টেকনাফস্থ ২ ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক আবুজার আল জাহিদ জানান, বিষয়টি বিজিবির উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বার্তা আদান প্রদান হয়েছে। আগামী ২৩ নভেম্বর ঘুংধুম সীমান্তে মিয়ানমারের সঙ্গে একটি পতাকা বৈঠকের কথা রয়েছে। সেখানে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

তিনি আরও জানান, মিয়ানমারে হামলার পর জেলেদের নাফ নদীতে মাছ ধরা বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। পরে মাছ শিকারের অনুমতি দেয়ার পর এ ধরনের ঘটনা ঘটে চলছে। প্রয়োজনে পুনরায় মাছ শিকার বন্ধ করে দেয়া হবে।

এদিকে শনিবার আবারও মিয়ানমার বিজিপি পোস্টে হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।