উন্নয়নে বদলে যাচ্ছে, টেকনাফ মডেল থানা

Teknaf-pic-08.11.16.jpg

মোঃ আশেক উল্লাহ ফারুকী, টেকনাফ |
দেশের সর্বদক্ষিণ সীমান্ত উপজেলা পৌনে তিন লাখ মানুষের জান, মাল রক্ষা ও আইন শৃংখলা রক্ষাকারী জনগুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান টেকনাফ “মডেল থানা এবং মাথিনের কুপ” উন্নয়নের চেহারা বদলে যাচ্ছে। জেলায় যে ক’টি থানা রয়েছে তার মধ্যে টেকনাফ মডেল থানার ক্রাইম এবং অপরাধ কর্ম অনেকাংশে বেশী। এখানে ইয়াবা, মানব পাচার, রোহিঙ্গা নারী নির্যাতন অপহরনও ধর্ষণ মামলা নিয়ে পুলিশকে দিবানিশি ব্যস্ত থাকতে হয়। এছাড়া রয়েছে মাথিনের কুপ দেখতে আসা ভিআইপি পর্যটকদের সেবা দিতে এবং ভ্রমন পিপাসু দেশ-বিদেশের পর্যটকেরা টেকনাফ মডেল থানা চত্তরে স্থাপিত ধীরাজও মাথিন এর প্রেম নিদর্শন সেই ঐতিহাসিক মাথিনের কুপাটি দেখার জন্য চলে আসে। যার কারণে এ মডেল থানার গুরুত্ব এবং পরিচিতি সবার কাছে প্রধান্য পাচ্ছে। মেয়াদ উত্তীর্ণ, জরাজীর্ণ থানার প্রশাসনিক ও আবাসিক ভবণে জীবনের ঝুঁকি মাথা নিয়ে পুলিশ প্রশাসন জনসেবা এবং আইন শৃংখলা উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। পুলিশের জনবল বৃর্দ্ধি হলেও অতীতে গড়ে উঠেনি প্রশাসনিক ও আবাসিক ভবন। এ জরাজীর্ণ ভবনেই পুলিশের প্রশাসনিক কার্যক্রম এবং স্বাস্থ্য সম্মত আবাসিক ভবন গড়ে উঠেনি। ফলে পুুলিশ প্রশাসন জীবনের ঝুঁকি উপেক্ষা করে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর লোকেরা এ কাজে ব্রত থাকে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর উখিয়া-টেকনাফ আসনে বার বার নির্বাচিত সরকার দলীয় এমপি আলহাজ্ব আব্দুর রহমান বদী, আইন শৃংখলা রক্ষার স্বার্থে বিষয়টির প্রতি গুরুত্বরূপ করে তার একক প্রচেষ্টায় ২টি ভবন নির্মিত হয়। এর মধ্যে চারতলা বিশিষ্ট পুলিশের প্রশাসনিক ভবন এবং অপরটি ২য় তলা আবাসিক ও অফিস ভবন। প্রশাসনিক ভবনের নির্মাণ কাজ শেষ হলেও তাহা এখনো উদ্বোধন হয়নি। টেকনাফ থানাকে একটি আধুনিক মডেল থানায় মর্যাদা দেয়ার উদ্দেশ্যে ২০১৪ সালে গণপ্র“ত বিভাগের অর্থায়নে চারতলা বিশিষ্ট পুলিশ প্রশাসনের মূল ভবনের কাজ শুরু হয়। বর্তমানে প্রায় সমাপ্তীর পথে। নির্মাণ কাজের অগ্রগতি ৯৫% শতাংশ। বাকি কাজ অর্থাভাবে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান শেষ করতে পাচ্ছেননা বলে জানায়। সংশ্লিষ্ট দপ্তর অর্থ ছাড় দিলে বাকি অসমাপ্ত কাজ শেষ করবে এমন আশংখা করছেন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার এ প্রতিবেদককে জানায়। ব্যবহৃত জরাজীর্ণ পুলিশ প্রশাসনিক ভবনটি নীলাম হলে এবং নব-নির্মিত প্রশাসনিক ভবনটি উদ্বোধন হলে টেকনাফ মডেল থানার চেহারা বদলে যাবে। এমন অভিমত করছেন সকলে। এর পাশাপাশি ঐতিহাসিক মাথিনের কুপ এবং থানার সামনে বাগান সংস্কার করে এর সৌন্দর্য্য বর্ধন করেছে। টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ও’সি) আব্দুল মজিদ বলেন, সম্প্রতি একজন বিচারপতি মাথিনের কূপ ভ্রমনে এসে টেকনাফ মডেল থানার অপরূপ দৃশ্য দেখে তিনি অভিভূত হয়ে থানার ও’সিকে বলেন, থানার সামনে পরিত্যাক্ত বাগানকে পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে একটি আধুনিক পর্যায়ে বাগান তৈরী করতে পরামর্শ দেন। বিষয়টি তিনি আমলে এনে এর কাজ শুরু করেন এবং বর্তমানে বাগানে আধুনিক লাইটং এর ব্যবস্থা এবং মান সম্মত বাগান তৈরী করে সবাইকে আকৃষ্ট করেছে।