ঢাকা মেডিকেলে তরুণীকে গণধর্ষণ, ১ আনসার গ্রেফতার

444444.jpg

প্রতিবন্ধী তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে কর্মরত এক আনসার সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার নাম আকিতুল ইসলাম।

বুধবার সন্ধ্যায় পালিয়ে যাওয়ার সময় রাজধানীর টিকুটুলি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশের রমনা জোনের সহকারী কমিশনার ইহসানুল ফেরদাউস যুগান্তর অনলাইনকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ধর্ষণের ঘটনায় ভিক্টিম নিজেই বাদী হয়ে বুধবার সন্ধ্যায় শাহবাগ থানায় মামলা করেছেন। মামলায় আতিকুলসহ ৬ আনসার সদস্যকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে ধর্ষণের অভিযোগে বুধবার ঢামেক হাসপাতালে কর্মরত ওই ৬ আনসার সদস্যকে ক্লোজড করা হয়। আতিকুল ছাড়া অন্য ৫ জন হলো- এপিসি একরামুল, আমিনুল, সিরাজ, বাবুল ও মিনহাজ।

ক্লোজড করার পর সবাই পালিয়ে যায়। বাকি পাঁচজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের সহকারী কমিশনার।

মেডিকেল সূত্র জানায়, ধর্ষণের শিকার হওয়া তরুণীটির গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার হোমনায়।

ওই তরুণীর ভাই জানান, ‘আমার বোন খুব মেধাবী ছিল। নবম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করার পর তার মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। এ কারণে মাঝে মাঝে সে বাড়ি থেকে কয়েক দিনের জন্য নিখোঁজ হয়ে যায়। এবার ১০-১২ দিন আগে সে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। মঙ্গলবার ঢামেক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে ফোন পেয়ে আজ (বুধবার) ঢাকায় আসি।’

সূত্র জানায়, গত ২৭ অক্টোবর রাতে বহির্বিভাগে দায়িত্বরত আনসারদের একজন ওই তরুণীকে হাসপাতালের একটি কক্ষে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে ৬ জন আনসার সদস্য পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে ওই কক্ষ থেকে তাকে বের করে দেয়া হয়।

২৯ অক্টোবর কামাল নামে এক ব্যক্তি তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তাকে ওসিসির সংরক্ষিত শয্যায় পাঠানো হয়।