পেকুয়ায় শিক্ষকের জমিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের নামে বিএনপি নেতার সাইনবোর্ড!

20161031_094516_resized.jpg

পেকুয়া(কক্সবাজার)প্রতিনিধি.
পেকুয়ায় সদর ইউনিয়নের গোঁয়াখালী মাতব্বরপাড়া এলাকায় শিক্ষকের ১৪শতক জমি দখলে নিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদের নামে সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়েছে এক বিএনপি নেতা। গত রবিবার ৩০ অক্টোবর গভীর রাতে মাতব্বরপাড়া গোঁয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে শিক্ষকের জায়গা দখলে নিতে সাইনবোর্ড টাঙ্গানোর এ ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনার জের ধরে এলাকায় দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।
শিক্ষকের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করছিল ওই বিএনপি নেতা। টাকা না পেয়ে অবশেষে ওই জায়গার উপর রাতেই টাঙ্গিয়ে দেয় সাইনবোর্ড। টাঙ্গানো সাইনবোর্ডে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ১নং ওয়ার্ড, মাতব্বরপাড়া গোঁয়াখালী স্থান সংযোজিত করে। এ
দিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের জায়গা দখলে নিতে খোদ বিএনপি নেতার সাইনবোর্ড টাঙ্গানোর দৃশ্যে এলাকায় তোলপাড় চলছে। সাইনবোর্ড টাঙ্গানোর খবর পেকুয়ায় জানাজানি হলে ক্ষমতাসীনদল আওয়ামীলীগ ও তার সহযোগি সংগঠনের নেতারা চরম ক্ষুদ্ধ হয়েছেন। তারা এটি বিএনপি নেতার দুর্দান্ত প্রতারনা হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। দখলবাজিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও আওয়ামীলীগের নাম জড়িয়ে দেয়ায় এটিকে ক্ষমতাসীনদলের ভাবমুর্তি নষ্ট করার চক্রান্তের পাশাপাশি এটি আওয়ামীলীগের সাথে দুর্দান্ত প্রতারনা ও প্রহসন বলে অভিমত ব্যক্ত করা হয়েছে। এমনকি এ ন্যাক্কারজনক কাজে জড়িত দখলবাজ ওই বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেওয়ার আহব্বান জানান স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।
প্রাপ্ত সুত্রে জানা যায়, পৃথক দলিল মুলে গোয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মাস্টার মো.ইদ্রিস স্কুল সংলগ্ন স্থানে ১৪শতক জায়গা খরিদ করে। জমাভাগ খতিয়ান সৃজিত হয়েছে ওই শিক্ষকের নামে। ওই সময় থেকে এ জায়গা তার ভোগ দখলে রয়েছে।

জানা গেছে মাতবরপাড়া এলাকার মৃত.নুরুল কাইয়ুমের ছেলে বিএনপি নেতা হারুনুর রশিদ গত কয়েকমাস আগে থেকে শিক্ষক মুহাম্মদ ইদ্রিসের কাছ থেকে ৫০হাজার টাকা চাঁদাদাবি করছিল। সর্বশেষ ওইদিন গভীর রাতে হারুনুর রশিদ জায়গা জবর-দখলের কুমানসে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও আ’লীগ ১নং ওয়ার্ড় শাখার নামে জায়গাতে সাইন বোর্ড টাঙ্গিয়ে দেয়।

এ ব্যাপারে সদর ১নং ওয়ার্ড় আ’লীগ সভাপতি আমিরুল খালেদ জানায় বিষয়টি নিয়ে শিক্ষক আমি আর ইউপি সদস্যকে নালিশ দেয়।

আগামি শুক্রবার দু’পক্ষকে নিয়ে বৈঠকের দিনক্ষন ছিল। কিন্তু রাতে আ’লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে হারুন জমিতে সাইন বোর্ড লাগিয়ে দেয়। এটি দলের ভাবমুর্তি প্রশ্ন বিদ্ধ করেছে। অথচ হারুন একজন সক্রিয় বিএনপি নেতা। ইউপি সদস্য নুরুল হক সাদ্দাম জানায় জমি ইদ্রিস মাষ্টারের। এর আগে বৈঠক হয়েছিল। বৈঠকে হারুন জায়গার কোন যুক্তিক কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। ইদ্রিস মাষ্টার তাকে আবদার করে ১৫হাজার টাকা দিতে চেয়েছিল। হারুন জোর করে দখলে নিতে সাইন বোর্ড টাঙ্গায়। মাষ্টার ইদ্রিস জানায় হারুন আমাকে কয়েক মাস ধরে হয়রানি করছে। আমার কাছ থেকে বারবার টাকা দাবি করছে। আমার জায়গা জোর করে দখলে নিতে চায়। থানায় বিচার দেয় হারুন। সেখানে কোন উপযুক্ত কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। এতে ব্যর্থ হয়ে গভীর রাতে জমিতে সাইন র্বোড লাগায়। বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও আ’লীগের নাম ব্যবহার করে। বিষয়টি আমি পেকুয়া উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র নেতাদের জানায়। তারা ষ্পষ্ট বলেছে হারুন বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। দলের ভাবমুর্তি নষ্ট করার অধিকার হারুনকে দেয়া হয়নি। অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

পেকুয়া উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদুজ্জামান চৌধুরী জানায় জায়গা ইদ্রিস মাষ্টারের। হারুন একজন দখলবাজ। ওই জায়গা জোর করে দখলে নিতে চায় বিএনপি নেতা হারুন। জমিতে রাতে বঙ্গবন্ধু ও আ’লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে সাইন র্বোড টাঙ্গিয়েছে। এটি অমার্জনীয়।

উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক আবুল কাসেম জানায় আ’লীগ দখলের রাজনীতি করেনা। দল না করে অথচ ওই ব্যক্তি আমাদের দলের নাম ভাঙ্গিয়ে যে সাইন র্বোড টাঙ্গিয়েছে এটি চরম অন্যায়। আমরা বিষয়টি উদঘাটন করব। দায়ী ব্যক্তির বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনি পদক্ষেপে যাব।