ইয়েমেনে সৌদি জোটের বিমান হামলা, নিহত ৬০

yemen_29091_1477800085.jpg

ইয়েমেনে একটি কারাগার কমপ্লেক্সে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলা বহু হতাহত হয়েছে। খবর বিবিসির।

স্থানীয় গণমাধ্যম ও নিরাপত্তা বাহিনী জানিয়েছে, শনিবার পশ্চিমাঞ্চলীয় হুদাইদা বন্দরের যে বাড়িটিতে বিমান হামলা চালানো হয়, সেটি আল-জাইদিয়া নিরাপত্তা হেডকোয়ার্টার্স কারাগার হিসেবে ব্যবহার করতো।

হুদাইদা শহরের দখল নিয়ে ২০১৪ সাল থেকে সশস্ত্র হুথি বিদ্রোহীরা সরকারের সঙ্গে যুদ্ধে করে আসছে।

সরকারি সূত্র জানিয়েছে, বিদ্রোহী ও কারাবন্দি মিলে অন্তত ৩০ জন নিহত হয়েছে। তবে হুথি মিডিয়া নিহত ৪৩ বলে জানিয়েছে।

হুথি বিদ্রোহী দমনে ইয়েমেনের নির্বাসিত প্রেসিডেন্ট আবদ-রাব্বু মানসুর হাদিকে সমর্থন দিচ্ছে সৌদি জোট। ইতিমধ্যে তাদের বিমান হামলায় বহু বেসামরিক মানুষের মৃত্যু নিয়ে সমালোচনা ওঠেছে।

অবশ্য ভুল তথ্যের ভিত্তিতে এ ধরনের হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে পরে স্বীকার করেছে সৌদি জোট।

জাতিসংঘের দূত ইসমাইল ওল্ড চেক আহমেদের নতুন করে শান্তি চুক্তি প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদি প্রত্যাখ্যান করার পরই এ হামলার ঘটনা ঘটল।

এদিকে ইয়েমেনের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা বার্তাসংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, ইয়েমেনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ তাইজেতে আবদুল্লাহ আবদু নামের এক ব্যক্তির বাড়িতে সৌদি জোটের বিমান হামলায় একই পরিবারের ১১ জনসহ ১৭ ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

দু’টি বিমান হামলায় পাশাপাশি থাকা তিনটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ওই বাড়িগুলোতে থাকা সবাই নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে এক শিশু ও সাত নারী রয়েছে।