টেকনাফে হামলা চালিয়ে ঘর-ভিটা জবর দখলের অভিযোগ : আহত-১

Teknaf-pichamla_28.10.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি, টেকনাফ |
টেকনাফে হামলা চালিয়ে ঘর-ভিটা জবর দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় হামলায় একজন আহত হয়েছে। এছাড়া হামলাকারীরা নগদ টাকা, মোবাইলসহ বিভিন্ন মূল্যবান জিনিসপত্র লুটপাট করেছে বলে জানা গেছে। গত বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) সন্ধায় সাবরাং ইউনিয়নের কচুবনিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি মেম্বারের কাছে শালিস চললেও এখন ঘরভিটা সম্পূর্ন উদ্ধার হয়নি বলে জানিয়েছেন বাড়ির মালিক পক্ষ। এব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ঘর ভিটার মালিক পক্ষ।
অভিযোগে জানা যায়, সাবরাং ইউনিয়নের কচুবনিয়া এলাকার মালয়েশিয়া প্রবাসী মৃত আলি আহমদের ছেলে নুরুল আলম রাজুর স্ত্রী সমুদা ইয়াছমিন সন্তানদের নিয়ে স্বামীর ঘর ভিটায় বসবাস করে আসছিলেন। বাড়ির সমুদার স্বামী প্রবাসে থাকায় এবং বাড়িতে পুরুষ সদস্যদের অনুপস্থিতিতে ১০ শতক জমির উপর নির্মিত সেমি পাকা বাড়িটির উপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে তাদের প্রতিবেশী কয়েক আত্মীয়ের। তারা ঘরভিটা বিক্রয়ের জন্য কয়েক দফা প্রস্তাব দেয় এতে মৃত আলী আহমদের পুত্র-কন্যারা বিক্রি করতে রাজী না হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার সন্ধায় জোর পূর্বক ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের নিয়ে হামলা চালিয়ে ঘর ভিটা জবর দখল করে নেয়। এসময় হামলায় মৃত আলি আহমদের ছেলে দিদারুল আলম আরজু আহত হয়। তাকে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।
শামসুন্নাহার, মদিনা খাতুন, জিয়ারু, রাবেয়া ও ভাড়াটে সন্ত্রাসী জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বে এ হামলা চালানো হয় বলে জানিয়েছেন ঘরভিটার মালিক আহত আরজু ও সমুদা। শুধু তাই নই হামলাকারীরা বাড়ির আসবাবপত্র ছুড়ে ফেলে দেয় এবং নগদ টাকা, মোবাইল সেট সহ মূল্যবান জিনিসপত্র লুট করে।
এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি মেম্বার জাফর আলমকে জানালে তিনি বাড়ির একটি কক্ষ উদ্ধার করে দেন। তবে এখনো জবর দখলকারীরা ঘর-ভিটা দখল করে রেখেছে। এব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভূক্তভোগী পরিবারটি।
এব্যাপারে স্থানীয় ইউপি মেম্বার জাফর আলমের কাছে জানতে চাইলে তিনি সংবাদের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শালিস বিচারের মাধ্যমে জবর দখলকারীদের ঘর ভিটা থেকে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। আপাতত একটি কক্ষ উদ্ধার করে তাতে রাজুর পরিবারকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। মৃত আলি আহমদের নামেই উক্ত জমির মালিকানা বলে জানান তিনি।