চরবৃত্তির অভিযোগে পাক কূটনীতিক বহিষ্কার

mohammed-akhtar_28845_1477552444.jpg

প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত নথি চুরি করে ফাঁস করে দেয়ার অভিযোগে ভারতে নিযুক্ত পাকিস্তান হাইকমিশনের কর্মকর্তা মোহাম্মদ আকতারকে (৩৫) বহিষ্কার করা হয়েছে।

দিল্লি থেকে আটকের পর বৃহস্পতিবার পুলিশ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

মোহাম্মদ আখতারের সঙ্গে তাকে দেশের গোপন নথি সরবরাহের অভিযোগে রাজস্থান থেকে পুলিশ মাওলানা রমজান ও সুবাস জানগীর নামে দুই ব্যক্তিকেও আটক করেছে। খবর এনডিটিভির।

ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বিকাশ সোরাপ টুইটবার্তায় বলেছেন, ‘এ ঘটনায় ওই কূটনীতিককে ভারতে অবাঞ্চিত ঘোষণা করা হয়েছে। আর পাকিস্তানের হাইকমিশনার আবদুল বাসিতকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়েছে।’

এই পাক কূটনীতিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ভারতের সেনাবাহিনীর গোপন তথ্য তিনি পাকিস্তানে ফাঁস করে দিতেন। তার কাছ থেকে বেশকিছু গোপন নথিও মিলেছে।

দীর্ঘদিন ধরেই দিল্লি পুলিশের কাছে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তথ্য ফাঁসের খবর আসছিল। উপযুক্ত প্রমাণ না পাওয়ায় তাকে হাতেনাতে ধরা যাচ্ছিল না।

এদিন ভারতীয় সেনার গোপন নথিসহ ধরা হলেও দূতাবাসের কর্মী হওয়ায় তাকে এখনও গ্রেফতার করা হয়নি।

গতবছর পাকিস্তানের চর হিসেবে কাজ করা ৫ ব্যক্তিকে আটকের পর থেকেই পাকিস্তানি কূটনীতিকের ওপর কড়া নজর রেখে আসছিল ভারতের গোয়েন্দারা।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর উরিতে সন্ত্রাসী হামলায় ১৯ ভারতীয় সৈন্য নিহতরে ঘটনায় দু’দেশের সম্পর্কে নতুন করে টানাপোড়েন শুরু হয়।

সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ রেখা অতিক্রম করে গত ২৯ সেপ্টেম্বর সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করে ভারত এ হামলার জবাব দেয়।