প্রতিটি বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে হবে: প্রধানমন্ত্রী

pm_sheikh_hasina_28765_1477474622.jpg

টেকনাফ টুডে ডেস্ক |
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, চিকিৎসকদের মানসম্পন্ন শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ নিশ্চিত করতে দেশের প্রত্যেক বিভাগে একটি করে চিকিত্সা বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা হবে।

তিনি জানান, বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করার জন্য আমরা ১৫ বছর মেয়াদী টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। এ লক্ষ্যে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের কমিটি কাজ করছে।

বুধবার রাজধানীর কৃষিবিদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ান্সের (বিসিপিএস) ত্রয়োদশ সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণ দেয়ার সময় তিনি এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে চিকিৎসকদের আরো আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা রোগীদের চিকিৎসা সেবাটা ভালভাবে দেবেন। একটা কথা মনে রাখবেন ওষুধের চাইতে একজন ডাক্তারের মুখের কথাতেই অর্ধেক অসুখ কিন্তু ভাল হয়ে যায়। কারণ আমরাতো রোগী হই মাঝে মাঝে, তাই আমরা বুঝি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘চিকিৎসা শুধু একটি পেশা নয়, একটি মহান ব্রত। আপনারা নিষ্ঠা ও মেধা প্রয়োগ করে বিশেষজ্ঞ হয়েছেন। আর্তপীড়িতদের সেবাদানের জন্য সামর্থ্য অর্জন করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘এখানেই শেষ নয়, আপনাদের মধ্যে সেবাদানের মনোভাব তৈরি করতে হবে। প্রতিটি রোগীকে নিজের পরিবারের একজন সদস্য মনে করে সেভাবে সেবা প্রদান করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, আপনারা ডাক্তার আপনাদের মন হতে হবে অনেক উদার। আপনাদের মন হবে সেবার। আপনাদের কাছে বড় ছোট থাকবে না। আপনাদের কাছে থাকবে রোগ, কার রোগ বেশি কার রোগ কম। তাহলেই তো সমাজ ব্যবস্থার পরিবর্তন হবে এবং মানুষের মনের আপনারা সহযোগিতা পাবেন।’

প্রধানমন্ত্রী সমাবর্তন অনুষ্ঠানে এফসিপিএস এবং এমসিপিএস ডিগ্রী অর্জনকারী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মাঝে সনদ এবং কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে স্বর্ণ পদক বিতরণ করেন। সমাবেশ বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী মো.নাসিম।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এবং সমাবর্তন বক্তৃতা দেন বিসিপিএস সভাপতি অধ্যাপক মো. সানাওয়ার হোসেন। তিনি সনদ লাভকারি শিক্ষার্থীদের শপথ বাক্য পাঠ করান।