উখিয়ায় মালেশিয়ার ভিসা দেওয়ার নামে দুই ভাইয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা

unnamed-1-6.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি, উখিয়া |
কক্সবাজারের উখিয়ায় মালেশিয়ার ভিসা দেওয়ার নামে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে দুই ভাইয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। আর এতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কোন প্রকার নজরধারী নেই বললেই চলে।
জানা গেছে, উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের লম্বা ঘোনা নামক এলাকার মৃত আছমত আলীর ছেলে সম্প্রতি মরণ নেশা ইয়াবার বৃহত্তর চালান নিয়ে ঢাকায় গ্রেপ্তার হওয়া নুরুল ইসলাম প্রকাশ ইয়াবা ইসলাম, জেল থেকে বের হয়ে, ইয়াবার কালো টাকার পাহাড় দিয়ে ষ্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে মালেশিয়া ফাঁড়ি দিয়ে ওই খান থেকে ফের মানব পাচারে জড়িয়ে একটি বৃহত্তর সিন্ডিকেট গড়ে তোলে।
উক্ত সিন্ডিকেটে বাংলাদেশে নেতৃত্ব দিচ্ছে তার ছোট ভাই আনোয়ারুল ইসলাম প্রকাশ ভিসা আনোয়ার। উক্ত দুই ভাই এলাকার যুব ও ছাত্র সমাজকে ফুসলিয়ে স্টুডেন্ট ভিসা দিয়ে মালেশিয়া নিয়ে উন্নত চাকরির ব্যবস্থা করে দেওয়ার পাশাপাশি রাতারাতি কোটিপতি হওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে সুকৌশলে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।
শুধু তাই নয়, উক্ত যুবকদের কাছ থেকে জন প্রতি ২ থেকে আড়াই লাখ টাকা হতিয়ে নিয়ে তাদেরকে সর্বশান্ত করে ফেলে বলেও জানা যায়। পরে স্টুডেন্ট ভিসা দিয়ে তাদের কে মালেশিয়া নিয়ে গিয়ে তাদের অপর দালাল সিন্ডিকেটের কাছে ছড়া দামে বিক্রি করে ওই যুবকদের উপার্জনের টাকা থেকে কমিশন নিয়ে থাকে বলেও জানা যায়।
মালয়েশিয়া প্রবাসী ভুক্তভোগী আলমগীর ক্ষুব্দ কন্ঠে বলেন, নুরুল ইসলাম দালাল আমাকে উন্নত চাকরি দেওয়ার কথা বলে মালয়েশিয়া নিয়ে এসে বর্তমানে তার সিন্ডিকেটের দালালদের কাছে আমাকে বিক্রি করে, পরে ওই দালাল আমার পার্সপোট জব্দ করে আমাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালিয়ে ১৬ ঘন্টা তার দোকানে কাজ করিয়ে মাসিক টাকা গুলো বন্ধ করে রাখে। টাকা চাইতে গেলে বলে নুরুল ইসলাম দালাল তোমার বেতনের টাকা নিয়ে গেছে বলে হুংকার দিয়ে থাকে।
এ ব্যাপারে আমি উক্ত নুরুল ইসলাম দালাল তার ছোট ভাই আনোয়ার ও তার সিন্ডিকেটের অন্যতম গডফাদারদের গ্রেপ্তার পূর্বক আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য মালেশিয়ায় অবস্থান রত বাংলাদেশ দূতাবাস ও কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত দালাল নুরুল ইসলামের সাথে মুঠফোনে চেষ্টা করেও তার বক্তব্য জানা যায়নি।