উখিয়ায় ৩০ স্পটে চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা

Mahmudul-haq_ukhiya-pic.jpg

নিজস্ব প্রতিনিধি, উখিয়া |
কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার ৩০ টি ষ্পটে মাদকের জমজমাট ব্যবসা চলছে। এই ব্যবসার নেপথ্যে মোবাইল কোম্পানী রবির এক সময়ের হেলপার মাহমুদুল হক এসব মাদকের হাটে ইয়াবা বড়ি সরবরাহ করে থাকে। তাকে প্রশাসনে চিনলেও গ্রেফতার করতে পারছে না।

বর্তমানে সে উখিয়া মসজিদ মার্কেট এলাকায় বিছমিল্লাহ টেলিকম সেন্টার নামে দোকান খুলে ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। দোছড়ী গ্রামের আলী আহাম্মদের ছেলে মাহমুদুল হক এখন কোটিপতির তালিকায় নাম লেখিয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে এক শ্রেণির পুলিশ কর্মকর্তাদের উৎকোষের বিনিময়ে এ ব্যবসা চালিয়ে গেলেও সে রয়ে গেছে ধরাছোঁয়ার বাইরে।

এছাড়াও খয়রাতি পাড়া গ্রামের আতাউল্লাহ, লম্বাঘোনার মাহমুদুল করিম খোকা একই সিন্ডিকেটে ইয়াবা ব্যবসা চালালেও তাদেরকে ধরপাকড় করতে পারছেনা পুলিশ প্রশাসন।

সম্প্রতি ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ ধাওয়া করে উখিয়া সদর ষ্টেশনে মাহমুদুল করিম খোকার গাড়ি আটকানোর চেষ্টা করলেও জনতার রোষানলে পড়ে পুলিশ তাকে ধরতে ব্যর্থ হয়।

এ ব্যাপারে নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় ঘুমধুম পুলিশ বাদী হয়ে পুলিশের উপর হামলার একটি মামলা দায়ের করেছে।

জানা গেছে, উখিয়ার থাইংখালী, পালংখালী, রাহমতের বিল, জিমংখালী, ডেইল পাড়া, করইবনিয়া, পূর্ব ডিগলিয়াপালং, উখিয়া সদর, ঘিলাতলী, হাজির পাড়া, খয়রাতি পাড়া, পুকুরিয়া, উত্তর পুকুরিয়া, হলদিয়াপালং, রতœাপালং, সোনার পাড়া, পশ্চিম সোনার পাড়া, ডেইল পাড়া, ঘাটঘর পাড়া এলাকায় ৩০টি স্পটে ইয়াবা ব্যবসা রমরমা ভাবে চললেও পুলিশ নীরব ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর ।

জানা গেছে, উখিয়া থানা পুলিশের জনৈক কনস্টেবল ক্যাশিয়ার নামধারী এসব ইয়াবা ব্যবসায়ীর নিকট থেকে সাপ্তাহিক মাশওয়ারা নিয়ে থাকে। যার ফলে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পুলিশের হাতে ধরা পড়ে না। এ

ভাবে উখিয়ায় মরণনেশা ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে গডফাদাররা। এর ফলে মিয়ানমার থেকে টেকনাফ হয়ে ও নাফ নদী দিয়ে ইয়াবা গুলো উখিয়ায় এসে ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের হাতে জমা হয়। ওখান থেকে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঢাকা, চট্টগ্রাম শহরে নিয়ে যাওয়া হয়।

সম্প্রতি বালুখালী গ্রামের ইউপি সদস্য বখতিয়ার আহাম্মদ ৫০ হাজার ইয়াবা নিয়ে ঢাকায় গ্রেফতার হয়। ঢাকার খিলখেত থানায় এ ব্যাপারে মামলাও হয়েছে। ইয়াবা ব্যবসা রমরমা হয়ে উঠায় স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা পড়–য়া ছাত্ররা দিন দিন অবক্ষয়ের দিকে যাচ্ছে।

এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তাক্ষেপ কামনা করেছেন উখিয়া সচেতন মহল।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের জানান, প্রকৃত ইয়াবা ব্যবসায়ীদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। চিহ্নিত হওয়ার পর এসব ইয়াবা ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনা হবে।