ছাত্র নির্যাতনের প্রতিবাদে উখিয়ায় বিক্ষোভ: নির্বাহী অফিসার বরাবরে অভিযোগ

unnamed-4-1.jpg

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া |
উখিয়া ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের জেএসসি পরীক্ষার্থী মিজানুর রহমানকে খুঁটিতে বেধেঁ পাশবিক নির্যাতন চালিয়ে তার একটি হাত ভেঙ্গে দেওয়ার প্রতিবাদে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীরা বিক্ষোভ প্রদর্শণ করে দুর্বত্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে। আহত ছাত্র জালিয়াপালং ইউনিয়নের জুম্মাপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে। এঘটনায় থানায় ও উপজেলা প্রশাসনে পৃথক অভিযোগ করেছে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার।
পারিবারিক সূত্র জানায়, আহত ছাত্র মিজানুর রহমানের বড় বোন জাহেদা বেগমকে (২০) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একই গ্রামের ছালামত উল্লাহর ছেলে রুহুল আমিন (৩০) অবৈধ মেলামেশা করে আসছে দীর্ঘদিন থেকে। এ অবস্থায় জাহেদা ৮ মাসের অন্তসত্ত্বা হলে পরিবার ও স্থানীয় গ্রামবাসীর চাপের মুখে কোন প্রকার কাবিন নামা ছাড়া জাহেদাকে বিয়ে করে রুহুল আমিন। গত ১৬ অক্টোবর রাত ৮ টার দিকে জাহেদা একটি সন্তান প্রসব করলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ওই প্রসূতি অজ্ঞান হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ছোট ভাই মিজান তার অসুস্থ বোনকে দেখতে গেলে রুহুল আমিন ও অপরাপর ৪/৫ জন দুর্বত্ত মিজানকে খুঁটির সাথে বেঁেধ অমানুষিক নির্যাতন চালিয়ে গুরুতর আহত করে।
এ ঘটনায় আহত জেএসসি পরীক্ষার্থী মিজানুর রহমান গতকাল বৃহস্পতিবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে একটি অভিযোগ দায়ের করলে তিনি আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দেন। অফিসার ইনচার্জ মোঃ আবুল খায়ের জানান, বিষয়টি খুবই অমানবিক দাবী করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বস্ত করেন।