উখিয়ায় ৩য় শ্রেনীর ছাত্র বলাৎকারের শিকার, এলাকায় তোলপাড়

full_243363032_1439147100.jpg

শহিদুল ইসলাম, উখিয়া |
উখিয়ায় ৩য় শ্রেনীর এক ছাত্রকে বলাৎকারের ঘটনা কে কেন্দ্র করে চলছে এলাকায় ব্যাপক তোলপাড়।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার সকাল ১১ টার দিকে।

জানা গেছে, উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের রুমখা হাতির ঘোনা আবুল শমার দোকান সংলগ্ন এলাকার আব্দুস ছালাম মিস্ত্রির ছেলে তারেক ও ছৈয়দ নুরের ছেলে হেলাল উদ্দিন একই এলাকার হতদরিদ্র পরিবারের ছেলে রুমখাপালং হাতির ঘোনা ছায়েরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩য় শ্রেনীর ছাত্র কে (সঙ্গত কারনে নাম প্রকাশ করা হলো না) শুক্রবার সকালে ফুসলিয়ে আব্দুস ছালাম মিস্ত্রির বাড়ীতে টিভি দেখার ভ্যান করে নিয়ে গিয়ে রুমের দরজা বন্ধ করে, দুই লম্পট তারেক ও হেলাল শিশু আরাফাত কে দফায় দফায় বলতকার পূর্বক তাকে রক্তাক্ত করে মূমর্ষ অবস্থায় মাটিতে ফেলে রেখে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় বলে জানা যায় ।
এ সময় শিশু আরাফাত এর শোর চিৎকারে পার্শ্ববর্তী লোকজন এগিযে এসে তাকে মূমর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে দ্রুত উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করেন। ওই সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুকে আশংকা জনক দেখে কক্সবাজার সদর পাতালে প্রেরণ করেছেন।

বর্তমানে উক্ত বলতকারের ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানা গেছে।

রুমখাপালং হাতির ঘোনা ছায়েরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নুরুল কবির ক্ষুব্দ কন্ঠে ওই নরপশুদের কঠিন শাস্তি দাবী করেন। শিশুটির তার শিশু ছেলেকে যারা বলতকার করেছে তাদের এমন শাস্তি দাবী করেন, ভভিষ্যতে যাতে আর কোন মায়ের ছেলে কে এ ধরনের বলতকারের শিকার হতে না হয়।

তবে উক্ত ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার কালো টাকার মিশন নিয়ে আব্দুস ছালাম মিস্ত্রি স্থানীয় কিছু কথিত নেতা কর্মীদের ধারে ধারে ঘুরছে এবং হত দরিদ্র শিশুর পিতাকে মামলা না করার জন্য হুমকি ধমকি প্রদর্শন করছে বলেও জানা গেছে।

এ ব্যাপারে থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের এ ধরনের ঘটনার সংবাদ তিনি পেয়েছেন লিখিত অভিযোগ হাতে আসলেই জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।