হ্নীলায় দু’পক্ষের গোলাগুলির ঘটনায় হামিদকে জড়ানোর তীব্র প্রতিবাদ

.jpg

সিএনজি চালক জাফর হত্যা মামলার প্রধান আসামী নুরুল আমিন ও রাসেলের নেত্বেত্বে গুলাগুলির ঘটনা সংঘঠিত হয়েছে।
বার্তা পরিবেশক :
হ্নীলায় দু’পক্ষের গোলাগুলির ঘটনায় হামিদ কে জড়ানোর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন উলুচামরীর হামিদ। গত ০২ অক্টোবর’১৬ইং ও ০৬ অক্টোবর’১৬ইং কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন সংবাদ পত্র ও অনলাইন পোর্টালে “হ্নীলা উলুচামরীর হামিদ বাহিনী আবারো বেপরোয়া” ও “হ্নীলা দু’পক্ষের গোলাগুলি : উদ্বিগ্ন এলাকাবাসী” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদদ্বয় আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। উক্ত সংবাদ দু’টিতে আমাকে জড়িয়ে যে সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে তা উদ্ভট, হাস্যকর মিথ্যা বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। যা ‘শাক দিয়ে মাছ ঢাকার’ শামিল বলে আমি মনে করি।

তাছাড়া উক্ত ষড়যন্ত্রকারীরা ০৭নং ওয়ার্ড মেম্বার শফিক আহমদ ও সম্প্রতি টেকনাফের সিএনজি চালক জাফর হত্যা মামলার আসামী।

এরা আমাকেও পরিকল্পিতভাবে হত্যা করতে অপচেষ্টা করছে। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে উলুচামরী এলাকায় হামিদ বাহিনী নামে কোন বাহিনী নেই ও অতীতেও ছিল না। সংবাদে উল্লেখিত আমি হামিদ বর্তমানে পঙ্গুত্ব জীবন যাপন করছি। গত ২০১৪ইং সালে মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় আমার পা ভেঙ্গে গেছে। এতে বর্তমানে আমি বাহিনী চালানো বা বাহিনী নেতৃত্ব দেওয়ার মতো পরিস্থিতি আমার নেই ও ছিল না। কিছু স্বভাবজাত শত্রু তাদের পুরনো কুকৃীর্তি চরিতার্থ করতে পূর্বপরিকল্পিতভাবে শত্রুতা হাসিলে মত্ত হয়ে পত্রিকা ও বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে মিথ্যা সংবাদ সরবরাহ দিয়ে আমার মানক্ষুন্ন করতে উঠে পড়ে লেগেছে। যে ঘটনায় আমাকে জড়িয়ে মানহানি করছে তার প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে গত ০২ অক্টোবর উলুচামরী দক্ষিণ পাড়া ও স্কুল পাড়া এলাকার দু’দল শিশু ফুটবলারদের বল খেলায় দুই গ্রুপের সামান্য হাতাহাতি হলে উক্ত ঘটনায় উভয় পক্ষের অভিভাবকরা আমাকে বিচার দেয়। আমি বিচারের জন্য উভয় পক্ষকে ডাকার প্রস্তুতি নিলে দক্ষিণ পাড়া গ্রুপের মোহাম্মদ রাসেল ও নুরুল আমিনের নেতৃত্বে অতর্কিতভাবে গালিগালাজ করে উত্তেজনা সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে তারা কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ করে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। এতে আমি উভয় পক্ষকে উত্তেজনা সৃষ্টি না করে সংযত হতে বলি। তারপরও দক্ষিণ পাড়ার লোকজন আমার কথা উপেক্ষা করে ফাঁকা গুলি করতে করতে পালিয়ে যায়। এতে উল্টো আমাকে বাহিনীর প্রধান সাজিয়ে পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ সরবরাহ করে আমার ও আমার ঐতিহ্যবাহী পরিবারের মান ক্ষুন্ন করতে অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আমি উক্ত ভিত্তিহীন, মিথ্যা, বানোয়াট, উদ্ভট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রশাসনহ সংশ্লিষ্ট সকলকে উক্ত সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ করছি। ভবিষ্যতে সাংবাদিক ভাইদের যাচাই বাছাই করে সংবাদ পরিবেশনের আহবান জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
হামিদ হোছন
পিতা- মরহুম সিকদার আলী
উলুচামরী, হ্নীলা, টেকনাফ।