ফলোআপ : ঈদগড়ে মুরগীর খামার থেকে অপহৃত যুবক ১৬ ঘন্টা পর জিম্মি দশা থেকে মুক্তিপণ ছাড়া মুক্ত

-উদ্দিন.jpg

মুক্তিপন দিয়ে মুক্ত মনির উদ্দিন..ফাইল ছবি

শামীম ইকবাল চৌধুরী,নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবান)থেকেঃঃ
রামু উপজেলার ঈদগড় ইউনিয়নের করলিয়ামুরা রাস্তার মাথা নামক স্থানে অবস্থিত হাসমত উল্লাহ মুরগীর খামার থেকে অপহৃত যুবক মনির উদ্দীন দীর্ঘ ১৬ ঘন্টা পর জিম্মি দশা থেকে মুক্ত হয়েছে।
গত ৪ অক্টোবর মঙ্গলবার ভোর রাতে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা মনির উদ্দীনকে অপহরণ করে দূর্গম পাহাড়ে নিয়ে যায়। এরপর থেকে মোবাইল ফোনে ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে আসছিল। কিন্তু বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আবু মুছা ও রামু থানা পুলিশের যৌথ অভিযানে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা মুক্তিপণ ছাড়াই ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়।
অপহৃত যুবক মনির উদ্দীন জানান, ৫ অক্টোবর বুধবার সকাল সাতটা ত্রিশ মিনিটের দিকে ঈদগড় ইউনিয়নে রিজার্ভ ফরেস্ট এরিয়া বৈদ্য পাড়ার মুখ নামক পাহাড়ী এলাকায় তাকে ছেড়ে দিয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তিনি আরো জানান, ৬/৭ জনের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাকে অপহরণ করে দুর্গম পাহাড়ে নিয়ে যায়। তাদের পরনে হাফ প্যান্ট এবং সকলের হাতে দেশীয় তৈরী এক নলা বন্ধুক ও দা-ছুরী ছিল। নিয়ে যাবার পর থেকে মুক্তিপণের টাকার জন্য তাকে বেদম প্রহার করেছিল। কিন্তু পুলিশ জনতার সাড়াশি অভিযানে মুক্তিপণ ছাড়াই তাকে ছেড়ে দিয়ে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।
উল্লেখ্য, এই প্রথম সন্ত্রাসীরা মুক্তিপণ ছাড়া অপহৃত যুবককে ছেড়ে দেওয়ায় স্থানীয়রা পুলিশের সাড়াশি অভিযানকে স্বাগত জানান। অপহৃত যুবক মনির উদ্দীন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড কুম পাড়া গ্রামের শামশুল আলম ফকিরের পুত্র মনির উদ্দীন (২৬)।
বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আবু মুছা জানান, তার এলাকা না হলেও অপহৃত যুবক বাইশারী ইউনিয়নের বাসিন্দা হওয়ায় তিনি অভিযান চালাতে বাধ্য হয়েছেন। আগামীতেও এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে উল্লেখ করেন।