পেকুয়ায় স্কুল ছাত্রসহ দুই কিশোর দুই সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ

pppp.jpg

পেকুয়া প্রতিনিধি |
পেকুয়ায় স্কুল ছাত্র মো.সাঈদ ওরফে বাবু (১৩) এর খোঁজ নেই ১৬দিন ধরে। বাড়ি থেকে স্কুলে যায়। এরপর থেকে ৬ষ্ট শ্রেনীর অধ্যায়নরত ওই শিক্ষার্থীর আর কোন খদিস পাওয়া যায়নি। মো.সাঈদ প্রকাশ বাবু উপজেলার উজানটিয়া ইউনিয়নের নতুনঘোনা পেকুয়ার চর এলাকার শফি উদ্দিনের ছেলে। সে পেকুয়া জিএমসি ইনস্টিটিউশনের ৬ষ্ট শ্রেনীর ছাত্র। এ ব্যাপারে গতকাল (৪অক্টোবর) সোমবার ওই ছাত্রের পিতা বাদি হয়ে পেকুয়া থানায় একটি সাধারন ডায়েরী লিপিবদ্ধ করেন। যার নং-১১৮/১৬। এদিকে গত ১৬দিন যাবত কোমলমতি ওই শিক্ষার্থীর কোন ধরনের সন্ধ্যান না পাওয়ায় পরিবারে উৎকন্ঠা ও উদ্বেগ বেড়েছে। তার সন্ধ্যানে পরিবারের সদস্য সাম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে। তবে কোথাও এ পর্যন্ত তার হদিস মেলেনি। তার বাবা শফি উদ্দিন একজন মুদির দোকানদার। উজানটিয়া ইউনিয়নের সোনালি বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্টান রয়েছে। সন্তান নিখোঁজ থাকায় তারা চরমভাবে বিষন্ন ও বিচলিত হয়েছেন। মা শাহানা বেগম সন্তানের খোঁজে ছটফট করছেন। তার একমাত্র গর্ভের ধন বাবু নিখোঁজ থাকায় ওইদিন থেকে শাহানা বেগম বারবার মুর্চা যাচ্ছেন। চোখের পানিতে ও ছেলের জন্য বিলাপ ও আহাজারিতে যেকোন মানবতাকে হার মানায়। বাবু বাবা শফি উদ্দিন জানায় আমার ছেলে পেকুয়া জিএমসিতে ৬ষ্ট শ্রেনীতে পড়ে। সে মেধাবী ছাত্র। জিএমসির আবাসিক হোষ্টেলে থাকে সে। ঈদ-উল আযাহার ছুটিতে বাবু বাড়িতে আসে। ছুটির পর গত ১৮সেপ্টম্বর সকালে বাড়ি থেকে স্কুলে আসে। এরপর থেকে আমার ছেলে বাবু নিখোঁজ রয়েছে। তার গায়ের রং-শ্যামলা, উচ্চতা-সাড়ে চার ফুট, স্বাস্থ্যা-হেংলা পাতলা, তার পরনে ছিল হাত লম্বা ছোট দাইরের কাল রংয়ের শার্ট ও প্যান্ট। পায়ে ছিল সেন্ডেল। কোন সুহৃদয়বান ব্যক্তি তার সন্ধ্যান পেয়ে থাকলে ০১৮২০-২৭২৮০০ এ মুটোফোনে যোগাযোগ করতে অনুরোধ জানিয়েছেন তার পিতা শফিউদ্দিন। মা শাহানা বেগম বলেন আমার বাবুকে না পেলে আমি বাঁচবনা। আমার ছেলে কোন অবস্থায় আছে আমি জানিনা। আমি তাকে আমার বুকে ফিরে পেতে চাই।

কিশোর মিজান ১৪দিন ধরে নিখোঁজ ॥

পেকুয়ার এক কিশোর ১১দিন ধরে নিখোঁজ হওয়ার পর তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। নিখোঁজ মিজানুর রহমান (১২) মহেশখালী উপজেলার কালামার ছড়া ইউনিয়নের জমির উদ্দিনের ছেলে। পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, সে গত ২০সেপ্টম্বর নানার বাড়ি হইতে সাতকানিয়া তার পিত্রালয়ে যাওয়া সময় হারিয়ে যায়। এর পর থেকে সে নিখোঁজ হয়। ওই দিন মিজানুর রহমান (১১) পরনে সাদা গোলাপি পায়জামা পাঞ্জাবী, গায়ের রং কালো। কোন সুহৃদ ব্যাক্তি তার সন্ধান পেলে মোবাইল নং-০১৮৫২-৩২২৪৫৭ অথবা ০১৮৬৯-৬৩০২১০ এই ঠিকানায় অবহিত করার জন্য বিনীত অনুরোধ রহিল। মিজানুর রহমান হওয়ার পরথেকে অসহায় দরিদ্র পরেবারে চলছে অজানা উৎকন্ঠা।

ছবি আছে,