মরণ নেশা ইয়াবার থাবা : টেকনাফে মায়ের মামলায় ২ সন্তান কারাগারে

Arrest_1.jpg

জামাল উদ্দিন, টেকনাফ |
সন্তানদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে আদালতে মায়ের দায়ের করা মামলায় দুই সন্তানকে আটক করে কারাগারে পাঠিয়েছে টেকনাফ থানা পুলিশ। গতকাল শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে টেকনাফ থানা পুলিশের এস-আই মুফিজুল ইসলামের নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালিয়ে উক্ত দুই সন্তানকে আটক করেছে বলে জানা গেছে। মামলার অভিযোগে জানা যায়, টেকনাফ সাবরাং আছারবনিয়া এলাকার মৃত কবির আহমদের দুই সন্তান রফিক আলম (৩২) ও খুরশেদ আলম (৩০) দীর্ঘদিন ধরে ইয়াবা ট্যাবলয়েড সেবন করে মা জাহেদা বেগমের সম্পত্তি ও টাকা পয়সা জোর পূর্বক ছিনিয়ে নিতে বেশ কয়েকবার গলা টিপে হত্যার উদ্দেশ্যে মারধর, জিম্মি ও হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল। এ ঘটনায় মা বাদী হয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও থানায় একাধিকবার অভিযোগও করেছিল। এ বিষয়ে থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত এসআই সুবীর পাল বিচার নিস্পত্তির নিমিত্তে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি মোহাম্মদ শরীফ ও তাদের মামা আমির হোসেনের নিকট বিচারের ৭০ হাজার টাকা জমা করেছে। ঘটনাটি বিচারাধীন থাকাবস্থায় রফিক আলম ও খুরশেদ আলম বাড়ীর ফলজ গাছ কর্তন ও ফল লুটপাট করে নিয়ে যায় এবং পুনরায় মাকে বাড়ী ত্যাগ করার হুমকি ধমকি দেওয়ায় মা বাদী হয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর কক্সবাজার বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করে। যার নং- সিআর ২৬২/১৬, উক্ত মামলায় বিজ্ঞ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ৪২৭ ও ৪২৮ নং স্মারক মূলে সরাসরি ওয়ারেন্ট জারী করে। উক্ত ওয়ারেন্টের ভিত্তিতে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবদুল মজিদের নির্দেশে পুলিশের এস.আই. মুফিজুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ অভিযান চালিয়ে উপরোক্ত আসামীদ্বয়কে আটক করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করেছে। এদিকে একটি প্রভাবশালী মহল ঘটনাটি ধামাচাপা দিয়ে মামলা তুলে নিতে মাকে বার বার চাপ প্রয়োগ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে নিরীহ মা প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেছেন।