ইউএনওর বৈঠকে হ্নীলা হাইস্কুলের গোপন কমিটি বাতিলের সিদ্বান্ত

888877776666555-copy.jpg

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, টেকনাফ |
হ্নীলা হাইস্কুল পরিচালনা কমিটি গঠনে বার বার এলাকার অভিভাবক,শিক্ষানুরাগী ও সুধী সমাজকে উপেক্ষা করে পরিচালনা কমিটি গঠন নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে উত্তেজনার জেরধরে সৃষ্ট উত্তপ্ত পরিস্থিতির কারণে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দু‘পক্ষকে নিয়ে বৈঠকের পর সমঝোতায় উপনীত হয়েছে। এরফলে আগামীতে বিভিন্ন পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছে।
২ অক্টোবর দুপুর সাড়ে ১১টায় হ্নীলা হাইস্কুলের একাডেমিক ভবনে ইউএনও মোঃ শফিউল আলমের নেতৃত্বে উভয়পক্ষকে নিয়ে স্কুলে সৃষ্ট সমস্যা নিয়ে বৈঠকে মিলিত হয়। এতে উখিয়া-টেকনাফের সাবেক এমপি ও টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী,ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এইচকে আনোয়ার,উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার নুরুল আবছার,হ্নীলা হাইস্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম,শিক্ষানুরাগী ও সাবেক ইউপি মেম্বার ছালেহ আহমদ,উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা কায়সার উদ্দিন আহমদ,মাহবুব মোরশেদ,স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ও অভিভাবক শামসুল আলম বাবুল,বনি আমিন,শফিকুর রহমান ও নুরুল বশরসহ শত শত অভিভাবক উপস্থিত ছিলেন। সভায় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বিশেষ মহলের প্ররোচনায় গোপনে স্কুল পরিচালনা কমিটি গঠনের বিষয়টি স্বীকার করেন। ইউএনও স্কুল এবং শিক্ষার্থীদের স্বার্থে আগামী ২০অক্টোবরের মধ্যে গোপনে গঠিত কমিটি প্রত্যাহার করে সকলের অংশ-গ্রহণের ভিত্তিতে সার্বজনীন হ্নীলা হাইস্কুল পরিচালনা কমিটি গঠনের নির্দেশনা প্রদান করেন। ইউএনওর এই সিদ্বান্তের ফলে উত্তপ্ত হয়ে উঠা হাজারো শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্বস্থি ফিরে এসেছে। এই ব্যাপারে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী জানান-১৯৪৬ সালে এই স্কুল প্রতিষ্ঠার পর অনেক চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে আজকের এই অবস্থানে এসেছে। ১৯৯৬সালে আমি এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর এই প্রতিষ্ঠানের অভূতপূর্ব উন্নয়নের পদক্ষেপ নিই।এই স্কুল দেশ ও জাতির সেবার জন্য অনেক কিছু সৃষ্টি করেছে।ঐতিহ্যবাহী এই স্কুলটি এভাবেই বার বার গোপন কমিটি দিয়ে চলতে পারেনা। আমি এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করছি। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম জানান-শিক্ষার্থী,অভিভাবক ও এলাকাবাসীর স্বার্থে ইউএনওর নির্দেশনার আলোকে গঠিত কমিটি আগামী ২০অক্টোবরের মধ্যে বাতিল করে সার্বজনীন হ্নীলা হাইস্কুল পরিচালনা কমিটি গঠনের চেষ্টা চালিয়ে যাব। অভিভাবক সদস্য শামসুল আলম বাবুল মেম্বার বলেন-এই স্কুলে সকল অভিভাবক,শিক্ষানুরাগী ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের অবদান রয়েছে। স্কুল পরিচালনার ক্ষেত্রেও সকলের অংশ-গ্রহণ প্রয়োজন। ইউএনও মহোদয়ের সিদ্বান্তের পর গোপন কমিটি বাতিল করা না হলে আবারো সর্বস্তরের জনসাধারণ নিয়ে তাদের প্রতিহত করা হবে।