পেকুয়ায় ৭দিনের বিশেষ অভিযানে-অস্ত্র, গুলি, মাদক উপকরণ উদ্ধার

arrest_26267_1475070331.jpg

এস.এম.ছগির আহমদ আজগরী;পেকুয়া |
কক্সবাজারের পেকুয়ায় পুলিশের ৭দিনের বিশেষ অভিযান (ব্লক রেইডে) অস্ত্র, গুলি ও মাদকের বিভিন্ন উপকরণ উদ্ধার ও উল্লেখযোগ্য পরিমান ওয়ারেন্ট তামিলের খবর পাওয়া গেছে। থানার জনসংযোগ সূত্র বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। পেকুয়া থানার অভিযান বিষয়ক তথ্য কর্মকর্তা এ এস আই মোঃ নাজির এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে জানিয়েছেন, সরকার ও পুলিশ ডিপার্টমেন্টের উর্ধ্বতন মহলের নির্দ্দেশে চলতি বছরের সেপ্টম্বর মাসে সারাদেশে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী সপ্তাহ ব্যাপী বিশেষ অভিযান চালায়। উক্ত অভিযানের অংশ হিসাবে পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ও.সি) জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভুঁইয়ার নেতৃত্বে গত ২৩সেপ্টম্বর হইতে ২৯সেপ্টম্বর পর্যন্ত পেকুয়ার প্রত্যন্ত পাড়া মহল্লায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে পেকুয়া থানা পুলিশ। এসময় পেকুয়া থানা পুলিশ জি.আর মামলার ২০টি, সি.আর মামলার ৯টি ওয়ারেন্ট তামিলের পাশাপাশি ফৌজদারী অপরাধে সংশ্লিষ্টতার দায়ে ৪জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয় এবং নিয়মিত মামলার এজাহার নামীয় প্রধান ২ আসামীকে গ্রেপ্তার পূর্বক বিজ্ঞ আদালতে সৌপর্দ্দ করে পুলিশ। বিশেষ অভিযান চলাকালে ১২লিটার চোলাই মদ নিয়ে রাশেল(২৪) নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার পূর্বক তার বিরুদ্ধে পেকুয়া থানার এ এস আই নাজির বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ২২(গ) ধারায় মামলা রুজু করে। যার মামলা নং-১২/২৩-০৯-১৬ইং। এসময় র‌্যাবের ৫টি ওয়ান শুটারগান (এল.জি) ০৮রাউন্ড ১২বোর কার্তুজসহ এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার পূর্বক থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করা হয়। একই সময়ে ৩০০গ্রাম গাঁজা উদ্ধার সহ ঘটনায় জড়িতকে গ্রেপ্তার পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয় পুলিশ। পেকুয়া থানা পুলিশের সপ্তাহব্যাপী বিশেষ অভিযান চলাকালে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার ভিকটিম উদ্ধার ও ১জনকে গ্রেপ্তার করে। অভিযানের শেষ দিনে পেকুয়া থানার ওসি জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভুঁইয়া গোপন সংবাদ সূত্রে পুলিশি অভিযান চালিয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় ১টি দেশীয় তৈরী ১নলা বন্দুক, ২রাউন্ড কার্তুজ, ২টাইগার কোল্ড ড্রিংক্স বোতল মদ ও ২জোড়া সেন্ডেল উদ্ধার সাফল্য দেখায় পুলিশ। এঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরী রুজু হয় বলে থানা সূত্র জানায়। পেকুয়া থানার ও.সি জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভুঁইয়া অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।