হ্নীলা হাইস্কুল ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে পকেট বাণিজ্য বন্ধ করুন

89766.jpg

হ্নীলা হাইস্কুল উন্নয়ন ও সংগ্রাম পরিষদের সভায় বক্তারা

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, টেকনাফ |
হ্নীলা হাইস্কুল উন্নয়ন ও সংগ্রাম পরিষদ গঠনকল্পে আয়োজিত অভিভাবক ও সুধী সমাবেশে বক্তারা বলেছেন ৭০ বছরের ঐতিহ্যবাহী হ্নীলা হাইস্কুলে ২০১১সালের ১৩সেপ্টেম্বর শিক্ষা বোর্ডের নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে স্ব স্ব আতœীয়-স্বজন দিয়ে সিরাজুল ইসলাম সিকদারকে সভাপতি ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালামকে সদস্য সচিব করে ৯সদস্যবিশিষ্ট স্কুল ম্যানেজিং পকেট কমিটি গঠন করা হয়।তৎকালীন অভিভাবক,শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী আন্দোলনসহ আদালতে মামলা পর্যন্ত গড়ায়।তখন ঐ কমিটি কিছু শিক্ষার্থীদের হুমকি-ধমকি,শিক্ষকদের বেতন-ভাতা বন্ধ ও ছাটাঁই করায় আন্দোলন স্থগিত হয়ে যায়।তৎকালীন আমলে দায়েরকৃত মামলা নিষ্পত্তি না হতেই সুযোগের সদ্ব্যবহার করে ২০১৩সালের ১৩অক্টোবর উক্ত কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেই গোপনে আবারো সিরাজুল ইসলাম সিকদারকে সভাপতি ও আব্দুস সালামকে সদস্য সচিব করে একটি এডহক কমিটি গঠন করেন।এরপর হতে উক্ত চক্র স্কুলকে,পৈত্রিক সম্পত্তির মতো ব্যবহার করে ১৬শ শিক্ষার্থীদের জন্য ১৭জনের মধ্যে এমপিওভূক্ত ৬জন ও অবশিষ্ট প্যারা শিক্ষক নিয়োগ, শিক্ষার্থীদের নিকট হতে মাসিক ফিঃ,রেজিঃ ফিঃ,সেশন ফিঃ,ফরম ফিলাপসহ সরকারী নিয়মের চাইতে ২/৩গুণ বেশী অর্থ আদায় করছে। এছাড়া সরকারী নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ৮ম ও ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের বাধ্যতামূলক কোচিং বাণিজ্য করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে অনিয়ম-দূর্নীতিতে ডুবে যায়। ২০১৬সালে এসে আগের মতো গোপনে একটি পকেট কমিটি করার পায়তারা চালাচ্ছে।ঐতিহ্যবাহী এই স্কুলে এই অবস্থা চলতে থাকলে স্কুল ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে যাচ্ছে।স্কুলকে রক্ষার্থে হ্নীলা হাইস্কুল উন্নয়ন ও সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়েছে। এই সংগঠন দূর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালামের অপসারণ ও সকলের অংশ-গ্রহণের ভিত্তিতে নির্বাচনের মাধ্যমে স্কুল পরিচালনা কমিটি গঠনে পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।অন্যথায় সবাইকে সঙ্গে নিয়ে হ্নীলা হাইস্কুল উন্নয়ন ও সংগ্রাম পরিষদ দূর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন। এই ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে শিক্ষামন্ত্রী বরাবরে আবেদন করা হয়েছে।
সুত্র জানায়-৩০সেপ্টেম্বর বাদে আছর হ্নীলা দরগাহ ষ্টেশনে হ্নীলা হাইস্কুল উন্নয়ন ও সংগ্রাম পরিষদের এক সভা সাবেক এমপি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যাপক মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। মোস্তাক আহমদ সাকির পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন অভিভাবক শামসুল আলম বাবুল মেম্বার,শফিকুর রহমান প্রকাশ গুরা মিয়া,নবী হোছাইন ভূলূ,জাহাঙ্গীর আলম,জয়নাল আবেদীন,আবুল কালাম আলম,ডাঃ মধু কুমার শর্মা,শফিকুর রহমান,আবুল কালাম মাঝি,আব্দু শরীফ,ফরিদ আলম,আব্দুর রহমান প্রমুখ।সভা শেষে স্কুলের অভিভাবক,স্থানীয় শুভাকাংখী ও এলাকাবাসীদের নিয়ে ১০১সদস্য বিশিষ্ট হ্নীলা হাইস্কুল উন্নয়ন ও সংগ্রাম পরিষদ গঠন করা হয়।