কাঁচপুরে ইয়াবাসহ ২ ‘সাংবাদিক’ গ্রেফতার

arrest_26267_1475070331.jpg

অনলাইন ডেস্ক |
এলাকায় ওরা দুইজন নিজেদের পরিচয় দিত সাংবাদিক হিসেবে। ভুয়া পরিচয়পত্র নিয়ে ঘুরত যত্রতত্র। এমন কোনো অপকর্ম নেই যা তারা করত না। মাদক ব্যবসা থেকে চাঁদাবাজি- এই সিন্ডিকেটের সদস্যরা সব কিছুতেই ছিল বেপরোয়া।

অবশেষে পুলিশের জালে ধরা পড়লো তারা। বুধবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁ উপজেলার ব্যস্ততম কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে ভুয়া এই দুই সাংবাদিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সাথে পাকড়াও করা হয়েছে তাদের আরেক সহযোগীকে।

গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ৬০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট। বুধবার দুপুরে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো-কথিত সাংবাদিক মাসুম বিল্লাহ, সোহেল মিয়া ও সুমন মিয়া।

তাদের বিরুদ্ধে কাঁচপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় যানবাহন ও শিল্পপ্রতিষ্ঠানে ব্যাপক চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে। এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কথিত সাংবাদিক মাসুম বিল্লাহ ও সোহেল মিয়া একাধিক আন্ডারগ্রাউন্ড পত্রিকার কার্ড পকেটে নিয়ে ও ৪/৫ জনের একটি সিন্ডিকেট তৈরি করে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা, মাদক সেবনসহ বিভিন্ন অপকর্ম পরিচালনা করে আসছিল।

এছাড়াও চক্রটি ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক দিয়ে চলাচলকারী বিভিন্ন যানবাহন থেকে চাঁদাবাজিও করত।

কোনো যানবাহনের শ্রমিক ও মালিক এ সিন্ডিকেটের সদস্যদের চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তারা তাদেরকে মারধর, পত্রিকায় মিথ্যা রিপোর্ট করে দেয়া ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিত।

এছাড়াও চক্রটি নিজেদেরকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান থেকে চাঁদা উত্তোলন করে আসছিল। চক্রটি এলাকার সাধারণ মানুষকে ব্ল্যাকমেইলিংসহ বিভিন্ন অপকর্ম পরিচালনা করে আসলেও পুলিশ এতোদিন তাদেরকে অজ্ঞাত কারনে গ্রেফতার করেনি।

বুধবার দুপুরে সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল জব্বার ও উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাকসুদুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ কাঁচপুর এলাকায় টহল দিচ্ছিল।

এসময় পুলিশ কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন পরিত্যক্ত সোনারগাঁ ফিলিং স্টেশন এলাকা থেকে ইয়াবা বিক্রি করার সময় হাতেনাতে কথিত সাংবাদিক মাসুম বিল্লাহ ও সোহেল মিয়াসহ ৩ জনকে ৬০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে।

সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ্ মোঃ মঞ্জুর কাদের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে কাঁচপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিক্রি, মাদক সেবন, পরিবহনে ও শিল্পপ্রতিষ্ঠানে চাঁদাবাজি করার অভিযোগ রয়েছে।

এতদিন ভয়ে কেউ চক্রটির বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ করতে সাহস পায়নি। বুধবার দুপুরে পুলিশ তাদেরকে ৬০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ হাতেনাতে গ্রেফতার করে। তাদের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।